শবীরামালা মামলা বৃহত্তর বেঞ্চে  পাঠাল সুপ্রিম কোর্ট। মামলা পাঠানো হচ্ছে ৭ বিচারপতির বৃহত্তর বে়ঞ্চে। শবরীমালা নিয়ে ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ ঐক্যমতে পৌঁছতে পারেনি। ২ বিচারপতি রায় নিয়ে সহমত ছিলেন না। সেকারণে মামলা পাঠান হল বৃহত্তর বেঞ্চে। 

সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তের ফলে অমীমাংসিত থেকে গেল মেয়েদের মন্দিরে প্রবেশের বিষয়টি। বৃহস্পতিবারই এই নির্দেশ দিল সর্বোচ্চ আদালত। 

শীর্ষ আদালত কী রায় দেয় সেদিকে তাকিয়েছিল গোটা দেশ। সব বয়সের মহিলাদের শবরীমালায় ঢুকতে দেওয়া নিয়ে রিভিউ পিটিশনের শুনানি করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারপতি। 
কিন্তু ৫ বিচারপতির বেঞ্চ রায় নিয়ে এক মত হতে পারেনি। ৩-২-এ বিষয়টি আরও বড় বেঞ্চে পাঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রধান বিচারপতি সহ ৩ জনের সিদ্ধান্ত ছিল বড় সাংবিধানিকর বে়ঞ্চে পাঠানোর। অপর ২জন আগের নির্দেশই বহাল রাখতে চেয়েছিলেন। 

সুপ্রিম কোর্টের নতুন রায় না আসা পর্যন্ত আগের রায়ই বহাল থাকবে। এই মামলায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ছাড়াও ছিলেন বিচারপতি এরএফ নরিম্যান, এএম খানউইলকার, ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও ইন্দু মালহোত্রা। 

২০১৮ সালে শবরীমালা নিয়ে ঐতিহাসিক রায় দেয়। সব বয়সের মহিলারাই মন্দিরে ঢুকতে পারবেন বলে জানান হয়। এর আগে ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সী মহিলাদের উপর মন্দিরে ঢোকা নিয়ে নিষেধাজ্ঞা ছিল। সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয় শীর্ষ আদালত।