সেনাবাহিনীর উচ্চপদে মহিলা অফিসারদের স্থায়ী নিয়োগ দিতে আর বাধা রইল না। সোমবার সুপ্রিম কোর্ট এই বিষয়ে রায় দিয়ে জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারকে সশস্ত্র বাহিনীতে লিঙ্গ বৈষম্য দূর করার জন্য মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে। ২০১০ সালে দিল্লি হাইকোর্ট মহিলাদের সেনার উচ্চপদে নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। তারপরই সেই রায়-কে চ্যালেঞ্জ করে কেন্দ্র মামলা করেছিল সুপ্রিম কোর্টে। এদিন শীর্ষ আদালত কেন্দ্রের আবেদন খারিজ করে দিল।

এর আগে আদালতে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, স্থায়ী কমিশনের জন্য নির্বাচিত মহিলা অফিসারদের বাহিনীর সাংগঠনিক প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া হবে। কিন্তু, এদিন সমস্ত মহিলা সেনা অফিসারদের স্থায়ী নিয়োগের বিষয়টি সরকারকে আগামী ৩ মাসের মধ্যেই সেড়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। আদালত বলেছে, সেনাবাহিনীর উচ্চপদে মহিলা অফিসারদের নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা থাকা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক এবং সমান অধিকারের পরিপন্থী।

এর আগে আদালতে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল মহিলা অফিসারদের সেনাবাহিনীর উচ্চপদে নিয়োগ দেওয়ার বিষয়ে অনেক অসুবিধা রয়েছে। মূল অসুবিধা ভারতের প্রত্যন্ত এলাকা থেকে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া সদস্যরা এখনও মহিলা অফিসারদের কমান্ড মানতে রাজি নন। তাছাড়া তাদের উপর গৃহকর্মের প্রচুর চাপ থাকে। এছাড়া যুদ্ধের সময় মহিলাদের যুদ্ধবন্দি হওয়ারও বড় ঝুঁকি থাকে।