সোমবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা ঠাকুরের বাড়িতে উর্দু ভাষায় লেখা একটি সন্দেহজনক চিঠি আসা নিয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। চিঠির ভিতর ট্যালকম পাউডারের মতো সাদা গুঁড়ো জাতীয় পদার্থও পাওয়া গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চিঠিটি পাওয়ার পরই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ভোপালের সাংসদ। খবর দেওয়া হয় ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি-তে। এফএসএল-এর একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে চিঠিটি পরীক্ষা করে দেখে। স্থানীয়  পুলিশও ঘটনাস্থলে আসে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ওই সন্দেহজনক চিঠিটির ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। যেটুকু দেখা গিয়েছে তাতে দেখা যাচ্ছে চিঠিটিতে সাদা কালোতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল ও স্বয়ং ভোপালের সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের ছবি রয়েছে। তবে সবকটি ছবির উপরেই লাল কালি দিয়ে কাটা চিহ্ন দেওয়া। এইরকম ছবির উপরে কাটা চিহ্ন দিয়ে পোস্টার মধ্যপ্রাচ্যে আইএস জঙ্গি গোষ্ঠীকে করতে দেখা গিয়েছে।

ভোপাল পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির দুটি ভিন্ন ধারায় একটি মামলা দায়ের করেছে। স্বেচ্ছায় গুরুতর আঘাত করা এবং বেনামে যোগাযোগের মাধ্যমে ফৌজদারি অপরাধমূলক ভয় দেখানোর অভিযোগ আনা হয়েছে।

পরে সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর জানান, আরও বেশ কয়েকটি চিঠির সঙ্গে উর্দুতে লেখা চিঠিটি জুড়ে খামে ভরে পাঠানো হয়েছিল। দেশের শত্রুরা কোনও বড় ষড়যন্ত্র করছে, এই চিঠি তারই অংশ। তাঁর দাবি এই জাতীয় চিঠি তাঁকে আগেও দেওয়া হয়েছে। সেইসময়ও তিনি পুলিশকে চিঠির বিষয়ে জানিয়েছিলেন। কিন্তু, কংগ্রেস শাসিত মধ্যপ্রদেশের পুলিশ কখনও কোনও পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ তাঁর।