দেবদেবীদের শহর বারাণসী। এমনকী স্টেশনেও বেশ কয়েকটি মন্দির রয়েছে। এবার তার থেকে আরও একদাপ এগিয়ে গেল মোদী সরকার। রবিবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কাশী মহাকাল এক্সপ্রেসের যাত্রার উদ্বোধন করেছেন। সেই ট্রেনের কামড়ার মধ্যেই এবার তৈরি হল শিবের মন্দির। ট্রেনের একটি আসন স্থায়ীভাবে রিজার্ভ তাকবে ভগবান শিবের জন্য।

ট্রেনটি চলবে বারাণসী থেকে ইন্দোরের মধ্যে। ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে যাত্রা শুরু করবে এই ট্রেন। রেল মন্ত্রক থেকে জানানো হয়েছে এই ট্রেনের বি৫ কামড়ার ৬৪ নম্বর আসনে স্থায়ী যাত্রী হবেন ভগবান শিব। এই আসনটি লাল কাগজে মুড়ে, সেখানে শিব, কালী-সহ একাধিক দেবদেবীর ছবি রাখা হয়েছে। ফুল-মালা দিয়ে সাজানো হয়েছে আসনটি। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর প্রকাশ করা একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, কয়েকজন টিকিট পরীক্ষক ওই ট্রেন-মন্দির'এ পুজোও করছেন।

কামড়ার ভেতর মন্দির ছাড়াও এই নতুন ট্রেনটিতে আরও অনেক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। কাশী মহাকাল এক্সপ্রেস-ই দেশের প্রথম ট্রেন যার প্রতিটি কোচেই থাকছে সিসিটিভি ক্যামেরার নজর। আইআরসিটিসি’র চিফ রিজিওনাল ম্যানেজার অশ্বিনী শ্রীবাস্তব বলেছেন যে কাশী মহাকাল এক্সপ্রেসের প্রতিটি কোচে ছয়টি করে সিসিটিভি ক্যামেরার সুরক্ষা থাকছে। প্রতিটি কোচেই সেই ক্যামেরা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এক মাসেরও বেশি সময় ধরে আইআরসিটিসির তত্য ভাণ্ডারে ভিডিও ফুটেজ রাখা থাকবে।

এছাড়া এই ট্রেনের প্রতি যাত্রী ভ্রমনের সময় বিনামূল্যে ১০ লক্ষ টাকার বীমার সুবিধা পাবেন।  এর জন্য যাত্রীর কাছ থেকে কোনও প্রিমিয়াম-ও নেওয়া হবে না। টিকিট বুকিংয়ের সুবিধার্থে প্রতিটি স্টপেজ স্টেশনে রিজার্ভেশন কাউন্টার খোলা হবে। সেইসঙ্গে ট্রেনের সাইড লোয়ার বার্থের দুটি অংশের পাশে বাড়তি হাতলের মতো সাপোর্ট থাকবে। এতে করে ভ্রমণের সময় যাত্রীদের আর পিঠে ব্যথার অভিযোগ থাকবে না। ট্রেনের প্রতিটি কেবিনে ছয়টি করে মোবাইল চার্জিং পয়েন্টেরও সুবিধাও থাকছে।

এছাড়া কাশী মহাকাল এক্সপ্রেসের যাত্রীদের জন্য উজ্জয়েন, ওঙ্কারেশ্বর, মহেশ্বর, ইন্দোর এবং ভোপাল ঘোরার জন্য বিশেষ প্যাকেজের থাকছে। উজ্জয়েন এবং ইন্দোর থেকে যারা আসবেন তারা বারাণসী, কাশী, অযোধ্যা এবং প্রয়াগরাজ ঘুরে দেখার সুযোগ পাবেন। একইসঙ্গে, লখনউ, প্রয়াগরাজ এবং বারাণসী থেকে উজ্জয়েন যারা যাবেন তাদের জন্য অন্যান্য প্যাকেজ তৈরি করা হয়েছে।