ছিল 'কেম ছো ট্রাম্প'। পাল্টে হল 'নমস্তে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প'। আগামী ২৪-২৫ তারিখে দুইদিনের সফরে ভারতে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। গুজরাতের আহমেদাবাদ-এর সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হচ্ছে মেগা ইভেন্টের। তাঁর ভারত সফরের মাত্র কয়েকটা দিন আগে কেন্দ্র এই অনুষ্ঠানের নাম বদলের সিদ্ধান্ত নিল। কারণ কেন্দ্রের মতে 'কেম ছো' বড্ড আঞ্চলিক হয়ে যাচ্ছে তাই অনুষ্ঠানের থিম জাতীয় স্তরে তুলতেই এই নাম পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত বছর আমেরিকার হিউস্টনে মরেন্দদ্র মোদী, 'হাউডি মোদী' বা কেমন আছেন মোদী নামে এক অনুষ্ঠানে অংশ নেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টের উপস্থিতিতে সেই অনুষ্ঠান অন্য মাত্রা নিয়েছিল। তার সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই আহমেদাবাদে ট্রাম্পের অনুষ্ঠানের নাম রাখা হয়েছিল 'কেমছো ট্রাম্প'। গুজরাতি ভাষার বাংলা করলে দাঁড়ায় 'কেমন আছেন ট্রাম্প'। কিন্তু কেন্দ্রের মতে ভারতের মতো বহু ভাষাভাষির দেশে গুজরাতি ভাষায় অনুষ্ঠানের নাম রাখলে তা আঞ্চলিক অনুষ্ঠান বলে মনে হতে পারে। তাই জাতীয় মেজাজ আনতেই 'কেম ছো' পাল্টে 'নমস্তে' করা হল।

আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ডোনাল্ড ট্রাম্প আহমেদাবাদে এক রোডশো-তে অংশ নেবেন। আহমেদাবাদ বিমানবন্দর থেকে সবরমতী আশ্রম পর্যন্ত দীর্ঘ ৭ কিলোমিটার পথ ধরে চলবে এই রোড শো। তারপর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সদ্য নির্মিত মোতেরা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করবেন। এটিই বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়াম হতে চলেছে। সেখানে বিপুল জনসমাগম হবে বলে আশা করা হচ্ছে। আর তাদের সামনে দুই রাষ্ট্রনেতা ভাষণ দেবেন বলেও মনে করা হচ্ছে।

এই সপ্তাহের শুরুতেই হোয়াইট হাউস ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের ভারত সফরের কথা ঘোষণা করেছিল। নতুন শতাব্দীতে এই প্রথম কোনও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভারতে দ্বিপাক্ষিক সফরে আসছেন। ট্রাম্পেরও এটা প্রথম ভারত সফর। দু'দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও ব্যবসায়িক সম্পর্ককে আরও গভীর করতে ট্রাম্প ২৫ ফেব্রুয়ারি নয়াদিল্লিতে ভারতের ব্যবসায়ী মহলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে মিলিত হবেন।

রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের সিএমডি মুকেশ আম্বানি, ভারতী এয়ারটেলের চেয়ারম্যান সুনীল ভারতী মিত্তল, টাটা সন্স-এর চেয়ারম্যান এন চন্দ্রশেখরন, মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান আনন্দ মাহিন্দ্রা, লারসেন এবং টুব্রোর চেয়ারম্যান এএম নায়েক এবং বায়োকন-এর সিএমডি কিরন মজুমদার শ-সহ আরও বেশ কয়েকজন প্রথম সারির কর্পোরেট সংস্থার সিইও-দের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্টের এক গোলটেবিল বৈঠক হবে। সেখানে মার্কিন কর্পোরেট সংস্থাগুলির শীর্ষ আধিকারিকদের পাশাপাশি সিনিয়র আমলারাও অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। নয়াদিল্লির মার্কিন দূতাবাস এই অনুষ্ঠান আয়োজন করবে।