হরিদেবপুর থানার অন্তর্গত ঈশান ঘোষ রোডের একটি বাড়ি থেকে তিন জেএমবি জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কলকাতা পুলিশের এসটিএফ তাদের গ্রেফতার করেছে। ধৃতদের নাম নাজিউর রেহমান, শাব্বির, রেজাউল। আগ্নেয়াস্ত্র, বাংলাদেশের পাসপোর্ট এবং জেএমবি সম্পর্কিত প্রচুর গুরুত্বপূর্ণ নথিও এসটিএফ উদ্ধার করেছে। 

আরও পড়ুন- PAC-র চেয়ারম্যান মুকুল কেন, বিধানসভায় সমস্ত পদ ছাড়ছে BJP, মঙ্গলে রাজভবনে শুভেন্দু

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হরিদেবপুর থানার অন্তর্গত ইশানগঞ্জ রোডে একটি বাড়িতে দুটো ঘর ভাড়া করে থাকত এই তিনজন। আদতে মিথ্যে কথা বলেই বাড়িভাড়া নিয়েছিল তারা। বাড়িওয়ালাকে জানিয়েছিল যে তাদের মধ্যে একজনের ফলের ব্যবসা রয়েছে। আর দু'জন ছাতা সারাইয়ের কাজ করে। তবে দীর্ঘদিন ওই এলাকায় থাকার পরও বাসিন্দারা কেউই তাদের আসল পরিচয় ঘুনাক্ষরেও টের পাননি। তবে গোপন সূত্র থেকে খবর পেয়ে, বিশেষ টাস্কফোর্স অভিযান চালিয়ে জেএমবির এই তিন জঙ্গিকে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন- ভাড়াবৃদ্ধির দাবিতে কলকাতায় ট্যাক্সি ও অ্যাপ ক্যাব ধর্মঘট, এদিন মিলবে না কিছুই

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, জঙ্গি সংগঠন জেএমবি-র তিন নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা প্রত্যেকেই বড় মাপের নেতা বলে অনুমান করা হচ্ছে। ধৃতরা সবাই বাংলাদেশ থেকে এ রাজ্যে এসেছিল। সেই কারণেই মিলেছে একাধিক বাংলাদেশি পাসপোর্ট। তবে তারা কী কারণে এসেছিল? কোনও জঙ্গি হামলার ছক কষছিল কি না, এমনকী তাদের সঙ্গে আল কায়দা জঙ্গি গোষ্ঠীর কোনও সম্পর্ক আছে কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আরও পড়ুন- দেহরক্ষীর মৃত্যুর তদন্ত করবে সিআইডি, ডাকা হতে পারে শুভেন্দুকেও

জেএমবি জঙ্গিরা বেশ কয়েক বছর ধরেই রাজ্যে নাশকতার ছক কষছে। খাগড়াগড়-কাণ্ড যার সাম্প্রতিকতম উদাহরণ। এছাড়া মালদা ও মুর্শিদাবাদের বেশ কয়েকটি জায়গা থেকে এই গোষ্ঠীর একাধিক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর ফলে পুলিশের অনুমান, বাংলায় অত্যন্ত সক্রিয় রয়েছে এই জঙ্গিগোষ্ঠী। তবে যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তারা আদি নাকি নতুন গোষ্ঠীর সদস্য তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি। জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তাদের থেকে তা জানার চেষ্টা করবেন তদন্তকারীরা।