আবারও ট্রেনের দরজায় যাত্রীর হাত আটকে থাকা অবস্থায় চলতে শুরু করল মেট্রো রেল। এ যাত্রায় অবশ্য আরপিএফ কর্মীর তৎপরতায় এড়ানো গেল বড়সড় বিপত্তি। কয়েক দিন আগে পার্ক স্ট্রিট স্টেশনে ভয়াবহ দুর্ঘটনার পরে ফের একবার মেট্রোর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গেল। 

আরও পড়ুন- দরজায় ঝুলছেন যাত্রী, কলকাতা মেট্রোয় বেনজির দুর্ঘটনায় মৃত্যু বৃদ্ধের

আরও পড়ুন- জোর করে দরজা খুললেই বড় জরিমানা, নতুন নিয়ম চালু মেট্রো রেলে

একটি বাংলা নিউজ চ্যানেলের খবর অনুযায়ী এ দিন সকালে নেতাজি ভবন স্টেশন থেকে একটি ট্রেন ছেড়ে বেরনোর সময় ওই যাত্রীর হাত দরজার মধ্যে থেকে বেরিয়ে থাকতে দেখেন কর্তব্যরত আরপিএফ কর্মী। সঙ্গে সঙ্গে তিনি চিৎকার করে ট্রেনের গার্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। গার্ডের থেকে সংকেত পেয়েই সঙ্গে সঙ্গে ট্রেন থামান চালক। ততক্ষণে ট্রেনের একটি কামরা সুড়ঙ্গে ঢুকে গিয়েছিল। এর পরেই দরজা খুলে দেওয়া হয়। তখনই ওই যাত্রী হাত ভিতরে ঢুকিয়ে নেন। কিন্তু ট্রেনে প্রচণ্ড ভিড় থাকায় যাত্রীকে চিহ্নিত করা যায়নি। 

তবে এবার অবশ্য ওই যাত্রী ট্রেনের কামরার ভিতরেই ছিলেন। সেই অবস্থাতেই কোনওভাবে তাঁর হাত দু'টি দরজার মধ্যে আটকে যায়। সেই অবস্থাতেই ট্রেন চলতে শুরু করায় দরজার সেন্সর ঠিক মতো কাজ করেছে কি না, সেই প্রশ্ন উঠছে।

গত ১৩ জুলাই পার্ক স্ট্রিট স্টেশন থেকে মেট্রোয় ওঠার সময় দরজায় হাত আটকে যায় সজল কাঞ্জিলাল নামে এক যাত্রীর। সেই অবস্থাতেই চলতে শুরু করে ট্রেন। সুড়ঙ্গের মধ্যে পড়ে গিয়ে তড়িদাহত হয়ে মৃত্যু হয় দরজায় ঝুলতে থাকা ওই যাত্রীর। সেই ঘটনার তদন্ত করছেন কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি। তার পরে মেট্রো স্টেশনগুলিতে অতিরিক্ত সতর্কতা নেওয়া হয়। তারই ফলে এ দিন বড় কোনও বিপত্তির আগেই বিষয়টি দরজা  থেকে যাত্রীর হাত বেড়িয়ে থাকার ঘটনা আরপিএফ কর্মীর নজরে পড়ে যায়।