একই দিনে ধরা পড়ল দুজন। রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চার। শনিবার এক প্রবীণ নাগরিকের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে।  তিনি সল্টলেকে আমরি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সম্প্রতি কিছুদিন জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি।  লালারস পরীক্ষা করে  প্রথম পরীক্ষাতে তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আরও একবার পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করেন চিকিৎসকরা। ফের পরীক্ষায় পজিটিভ ফল আসায় তাঁকে করোনা রোগী হিসাবে নিশ্চিত করা হয়েছে। 

হাসপাতাল সূত্রে খবর, আক্রান্ত দমদমের বাসিন্দা ৫৭ বছর বয়সী এক মধ্যবয়স্ক। তিনি জ্বর ও শুকনো কাশি নিয়ে চলতি মাসের ১৬ তারিখে সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে(AMRI) ভর্তি হন।  হাসপাতলে তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর ১৯ তারিখ তার রিপোর্ট আসে। সেখানে জানা যায়, তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। এই মুহূর্তে তাকে হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে।

রেল পরিষেবা বন্ধ, জনতা কারফিউতে চালু থাকবে মেট্রো.

পরিসংখ্য়ান বলছে, এদিন  সকালেই এক তরুণীর শরীরে করোনার ভাইরাস পাওয়া যায়। স্কটল্যান্ড থেকে সম্প্রতি রাজ্য়ে ফেরেন ওই তরুণী ৷ করোনা আক্রান্ত ওই তরুণী উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়ার বাসিন্দা ৷ বিদেশ থেকে ফিরে আইসোলেশনে ছিলেন হাবড়ার ওই তরুণী৷ শুক্রবার গভীর রাতে তাঁর লালারস পরীক্ষার রিপোর্ট আসে৷ রিপোর্টে হাবড়ার বাসিন্দার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে৷ এই মুহূর্তে তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে৷

আরও পড়ুন, ৬ মাস বিনামূল্য়ে রেশন দেবে রাজ্য়, করোনা আতঙ্কে ঘোষণা মুখ্য়মন্ত্রীর

 এই মুহূর্তে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি স্কটল্যান্ড ফেরত ওই তরুণী৷ তবে ওই তরণী দায়িত্বশীল নাগরিকের পরিচয় দিয়েছেন। স্কটল্য়ান্ড থেকে ফিরেই সোজা আইডি হাসপাতালে ভর্তি হন। কলকাতার বাকি ২ করোনা আক্রান্তের সঙ্গেই ওই তরুণীকেও আইডি হাসপাতালের স্পেশাল আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে৷  আক্রান্তের লালারস পরীক্ষার রিপোর্ট শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ নাইসেড থেকে এসে পৌঁছোয়৷ দ্রুত তাঁকে আইডি হাসপাতালের স্পেশাল আইসোলেশন ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয়৷

আরও পড়ুন, দ্বিতীয় করোনা আক্রান্তও শহরে ঘুরলেন বেপরোয়াভাবে, আতঙ্কে কাঁটা কলকাতাবাসী

আরও পড়ুন, 'চাইনিজ-নেপালিজ' তোমরা রোগ নিয়ে এসেছ, ফেসবুকে ভাইরাল কলকাতার জাতি বিদ্বেষ