প্রয়াত  কিংবদন্তী তারকা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। শোক স্তব্ধ পুরো বাংলা তথা দেশ। কেউ তাঁকে এভাবে হারাতে চায়নি। তাঁর বাড়ি ফেরার অপেক্ষায় ছিল গোটা শহর। কিন্তু এবার তাঁর নিথর দেহটাই ফিরবে শুধু। ইতিমধ্যেই হাসপাতালে এসে গিয়েছেন অরুপ বিশ্বাস। ওদিকে এসে গিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ও।   


প্রসঙ্গত,  অক্টোবরের গোড়ার দিকে করোনা আক্রান্ত হন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। তাঁকে ভর্তি করা হয় কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে। তারপর থেকে কখনও একটু ভাল,  আবার কখনও খারাপের দিকে শারীরিক অবস্থা যায়। প্রায় চল্লিশ দিন পার, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন এই বর্ষীয়ান অভিনেতা। এর আগে বুধবার অভিনেতার শ্বাসনালী অস্ত্রোপচার করেন চিকিৎসকরা। সেই অস্ত্রোপচার সফলও হয়। এরপর প্রথম পর্যায়ের প্লাজমা থেরাপির পর রোগীর আছন্নভাব ও অসংলগ্নতা অনেকটা কেটে যাবে বলে আশা করা হয়েছিল। কিন্তু তেমনটা আর হয়নি। উল্টে শুক্রবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় আরও।  সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের সুস্থ হয়ে ওঠা নিয়ে  মিরাকলকেই ভরসা রাখছিলেন চিকিৎসকরা।  কিন্তু কিছু মিরাকেল হল না। চলে গেলেন সবার প্রিয় সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। 


অপরদিকে, দিকে প্রবল উৎকন্ঠা নিয়ে আগেই হাসপাতলে এসেছিলেন কন্যা পৌলমী চট্টোপাধ্যায়। 'বাবা একদম ভালো নেই, বাবাকে এই অবস্থায় দেখতে পারছি না', বলতে বলতেই কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। তবে এত দ্রুত চলে যাবেন সেটা কেউই ভাবেনি।