ক্রমশ জটিল হচ্ছে শুভেন্দুর রাজনৈতিক অবস্থান। গতকাল রাতে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের মধ্যস্থতায় রফা সূত্র বের হয়েছিল। শুভেন্দুর সঙ্গে হাইপ্রোফাইল সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায় ও ভোট কৌশুলী প্রশান্ত কিশোর। সেখানে দুঘণ্টার ম্যারাথন বৈঠকে শুভেন্দুকে নিয়ে যাবতীয় সমস্যার সমাধান হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছিলেন মধ্যস্থাকারী সৌগত রায়। কিন্তু তার পরের দিনই নাটকীয় পরিবর্তন। শুভেন্দুকে নিয়ে নতুন করে জটিলতা তৈরি হল তৃণমূল কংগ্রেসে।

আরও পড়ুন-১৮ ফুটের আঁকাশি বানিয়ে জেলের দেওয়াল টপকে চম্পট, হোঁশ উড়ল পুলিশের

মঙ্গলবার রাতের গোপন বৈঠকে প্রকাশ্যে আসার পরই পাশা পাল্টে যায়। দলের গোপন বৈঠক কেন বাইরে আসবে তা নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। সূত্রের খবর, বিষয়টি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। বুধবার দুপুরে তিনি নিজেই সৌগত রায়কে হোয়াটস অ্যাপ মেসেজ করে জানিয়ে দেন, 'আমাদের একসঙ্গে কাজ করা সম্ভব নয়'।  

আরও পড়ুন-শুভেন্দুকে নিয়ে 'আশাবাদী' বিজেপি, 'আশায় মরে চাষা', কটাক্ষ তৃণমূলের

সৌগত রায়কে হোয়াটস অ্যাপ মেসেজ করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন মধ্যস্থতাকারী সৌগত রায় নিজেই। মঙ্গলবার রাতের পর বুধবার নাটকীয় পরিবর্তন নিয়ে সেভাবে কিছু মন্তব্য করতে চাননি তৃণমূলের এই বর্ষীয়ান সাংসদ। শুধু তিনি বলেন, ''মঙ্গববার বৈঠকের বিষয় মিডিয়াকে সত্যতা নিয়ে জানিয়েছি। এরপর শুভেন্দুর মনোভাবে কোনও পরিবর্তন হলে, সেটা তাঁর বিষয়। আমি আর কিছু বলতে পারব না। যা বলার এবার শুভেন্দু বলবেন। এই বিষয়ে শুভেন্দুর সঙ্গে আলোচনার আর কিছুই বাকি নেই''।

আরও পড়ুন-আজ অক্সফোর্ডের বিতর্কসভায় অংশ নেবেন মুখ্যমন্ত্রী, শিক্ষার্থীদের প্রশ্নের জবাব দেবেন মমতা

সৌগতে হোয়াটসঅ্যাপে কী লিখেছেন শুভেন্দু?

দলের গোপন বৈঠক নিয়ে প্রকাশ্যে এভাবে মন্তব্য করা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন শুভেন্দু। বুধবার বেলা গড়াতেই সৌগত রায়কে শুভেন্দু হোয়াটসঅ্য়াপে লেখেন,'' আমার বক্তব্যের এখনও কোনও সমাধান হয়নি। সমস্যান না করেই আমার উপর সব চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ৬ ডিসেম্বর আমার সাংবাদিক সম্মেলন করার কথা ছিল। আমার অবস্থান জানানোর কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই আপনারা সব প্রেসকে জানিয়ে দিলেন। আমারপক্ষে একসঙ্গে কাজ করা মুশকিল। আমাকে মাফ করবেন''।