কলকাতা মেট্রোর রেলে বেনজির দুর্ঘটনায় বড় পদক্ষেপ নিল রেল বোর্ড। শনিবারের যাত্রী মৃত্যু ঘটনার তদন্তভার দেওয়া হল কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটিকে। সোমবারই কলকাতায় এসে তদন্ত শুরু করবেন তিনি।

আরও পড়ুন- শুরু থেকেই বিভ্রাট, শনিবারের ভয়াবহ দুর্ঘটনায় কি ভিলেন মেট্রোর নতুন রেক

শনিবার সন্ধ্যায় পার্ক স্ট্রিট স্টেশন থেকে ট্রেনে ওঠার সময় নতুন ওই একটি রেকের দরজাতেই হাত আটকে গিয়েছিল সজল কাঞ্জিলাল নামে এক যাত্রীর। সেই অবস্থাতেই ট্রেন চলতে শুরু করে। দরজায় ঝুলতে থাকা সজলবাবু সুড়ঙ্গের মধ্যে পড়ে যান। সম্ভবত থার্ড রেলে তড়িদাহত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর। 

ঘটনার পরই মেট্রো কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তোলেন যাত্রীরা। প্রশ্ন ওঠে, একটি দরজা ঠিক মতো বন্ধ না হলেও কীভাবে চলতে শুরু করল ট্রেন? তবে কি সেন্সর ঠিকমতো কাজ না করাতেই চালকের কাছে কোনও সংকেত যায়নি? নাকি সংকেত গেলেও কোনও কারণে তা নজর এড়িয়ে যায় চালকের! কর্তব্যরত আরপিএফ কর্মীর ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। 

আরও পড়ুন- হাত ঢুকিয়ে মেট্রোর দরজা আটকানো, এবার কি শিক্ষা নেবেন যাত্রীরা

ঘটনার পর পরই উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেন মেট্রোর রেলের জেনারেল ম্যানেজার। রবিবারই কাজ শুরু করে দিয়েছিল তদন্ত কমিটি। কিন্তু ঘটনার গুরুত্ব বিবেচনা করে মেট্রোর নিজস্ব তদন্তের উপরে ভরসা না রেখে কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির হাতেই তদন্তভার তুলে দিল রেল বোর্ড। যে রেকটিতে দুর্ঘটনা ঘটেছিল, সেটি খুঁটিয়ে পরীক্ষা করা হবে। এই সিদ্ধান্তের ফলে মেট্রো রেলের নিজস্ব তদন্তের আর সেভাবে গুরুত্ব রইল না। চেন্নাইয়ের যে সংস্থায় এই নতুন রেকটি তৈরি হয়েছিল, সেই ইন্টেগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরির বিশেষজ্ঞদেরও কলকাতায় ডাকা হয়েছে।