করোনার কোপে ফের কলকাতা মেডিক্য়াল। কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৭ জন চিকিৎসকের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। তাঁদের মধ্যে ৬ জন প্রসূতি বিভাগে এবং একজন মেডিসিন বিভাগে কর্মরত। প্রায় ২৪ ঘন্টার মধ্য়ে মেডিক্য়ালে করোনা আক্রান্ত চিকিৎসকের সংখ্য়া আরও বেড়ে গেল। 

আরও পড়ুন, সোমবার থেকে বন্ধ গড়িয়া স্টেশন বাজার, রাজপুর-সোনারপুরে চলছে পুলিশের নাকা চেকিং


 প্রসূতি বিভাগে নারকেলডাঙার বাসিন্দা এক মহিলার করোনা ধরা পড়ার পর ওই বিভাগে কর্মরতদের কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়। তাঁদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ৭ চিকিৎসকের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। পাশাপাশি ৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। জানা গিয়েছে, ওই প্রসূতির সংস্পর্শে আসা তিনজন জুনিয়র ডাক্তার এবং মেডিসিন বিভাগের এক জুনিয়র ডাক্তারের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল রবিবারই। এদিকে করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ১২ চিকিৎ‍সক। জানা গিয়েছে, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের হস্টেলে থাকেন ওই ১২ জন চিকিৎ‍সক। তবে নতুন করে চিকিৎসকরা এই আক্রান্তদের সংস্পর্শে এসেছিল কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷  এরই সঙ্গে এদের সংস্পর্শে কারা কারা এসেছিল তারও তালিকা বানানো হচ্ছে৷ পাশাপাশি যে দুই জন রোগী করোনা আক্রান্ত হয়েছে, তাদেরকে পাঠানো হয়েছে বারাসাত হাসপাতালে৷  

আরও পড়ুন, চরম দারিদ্রেও ৩ বন্ধুর চেষ্টায় মুগ্ধ ভারত সেবাশ্রম, লকডাউনে খাবার পেয়ে আশীর্বাদ পর্ণশ্রীর ৫০টি পরিবারের 

অপরদিকে হাসপাতালের পূর্ত বিভাগের সহকারী ইঞ্জিনিয়ার সহ ওই চারজন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সোমবার নতুন করে আরও চারজন জুনিয়র চিকিৎসকের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে একের পর এক চিকিৎসকের করোনা আক্রান্তে খবরে কার্যত চিন্তায় পড়েছে স্বাস্থদফতর।  

 

আরও পড়ুন, করোনার কোপ এবার বাইপাসের ধারের বস্তিতে, ১৫০০০ মানুষকে পাঠানো হল কোয়ারেনন্টিনে

আরও পড়ুন, ভেন্টিলেশনে করোনা আক্রান্ত রাজ্য়ের স্বাস্থ্য কর্তা ও সার্জন, উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য দফতর

  'হটস্পট' এলাকা থেকে আসায় প্রসুতিকে ফিরিয়ে দিল এনআরএস, চরম যন্ত্রনা নিয়ে ঘরেই প্রসব-মৃত সদ্যোজাত