দমদম সেন্ট্রাল জেলে কয়েদি-পুলিশ সংঘর্ষে ৩ জন আসামির মৃত্যু হয়েছে ।  সূত্রের খবর, এরা  সকলেই বিচারাধীন বন্দি ছিলেন। এদের নাম আফতাব আনসারি, কমলেশ সিং, শেখ ফিরোজ ইসলাম । এরা তিনজনেই এনডিপিএস কেসে বিচারাধীন ছিলেন । টিটাগর থানার এলাকার বাসিন্দা। এছাড়াও অভিজিৎ নামে আরেক আসামি গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তার পায়ে গুলি লেগেছে। যদিও আসামিদের  মৃত্যুর বিষয়ে এখনও নিশ্চিত  করেনি জেল কর্তৃপক্ষ।

করোনা ভাইরাস নিয়ে দমদম জেলে ধুন্ধুমার, বন্দিদের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্র এলাকা.

 এদিন সকালে করোনার জেরে বাড়ির লোকের সঙ্গে দেখা করা এবং কথা বলা বন্ধ করে দেওয়ার প্রতিবাদে সকাল থেকেই দফায় দফায় উত্তাল হয়ে ওঠে দমদম সেন্ট্রাল জেল । ইতিমধ্যেই জেলের কয়েদি বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এবং জেল কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। 

রেল পরিষেবা বন্ধ, জনতা কারফিউতে চালু থাকবে মেট্রো.

পরে সংঘর্ষে আগুন লেগে যায় সংশোধানগারের মধ্য়ে। খবর পেয়ে ছুটে আসেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বোস। বন্দিদের সুরক্ষিত রাখতে নিজেই দাঁড়িয়ে থেকে আগুন নিয়ন্ত্রণ দেখেন। জানা গিয়েছে, এদিন জেলের ভেতরে মারমুখী বিচারাধীন এবং সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা দরজা জানালা ভেঙে আগুন ধরিয়ে দেয়। ভাঙচুর চালায় জেলের সামগ্রীতে।  আসামিদের বাগে আনতে আক্রমণাত্বক হতে হয় পুলিশকে। পরে বাইরে থেকে বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌছয়। বন্দিদের নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রথমে শূন্যে গুলি চালালো হয় বলে অভিযোগ। আসামিদের পরিবারের অভিযোগ, পুলিশের এলোপাথাড়ি ছোড়া গুলিতে বেশ কয়েকজন বন্দির আহত হয়েছে। তাদেরকে জেলের ভিতর যে হাসপাতাল রয়েছে সেই হাসপাতালেই চিকিৎসা করা হচ্ছে।

রাজ্য়ে আজ থেকে বন্ধ বার-রোস্তরাঁ, করোনা কোপে ঝাঁপ বন্ধ স্পা-পার্লারের