অবশেষে শেষ হল এনআরএস হাসপাতালের বহু প্রতীক্ষিত জেনারেল বডি মিটিং। মিটিং চলাকালে অনেকেই মনে করছিলেন মুখ্যমন্ত্রীর কথা মেনে নেবেন চিকিৎসকেরা। বৈঠক হবে রাজভবনে। কিন্তু সেই সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়ে এনআরএস-এর জুনিয়র ডাক্তারদের ফোরাম জানিয়ে দিল , বন্ধ ঘরে কোনও আলোচনা সম্ভব নয়।
 
এনআরএস-এর ছাত্রদের তরফ থেকে এদিন বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে-
 
১ মাননীয়ার প্রেস বৈঠকের পরে আমরা মিটিং-এ যে কথা গুলি তুলেছি এবং সিদ্ধান্ত নিয়েছি তা জানাতেই এই বিবৃতি।২ গতকাল মাননীয়ার প্রেস বিবৃতি ছিল বিভ্রান্তিমূলক।
৩  আমরা চাই প্রতিটি মেডিক্যাল কলেজের প্রতিনিধি ও মিডিয়ার উপস্থিতিতে বৈঠক হোক।
৪ আমরা চাই মুখ্যমন্ত্রী সমস্যা সমাধানে এগিয়ে আসুন। বন্ধ ঘরে বৈঠক স্বচ্ছ হবে না।
৫ রাজ্যের স্বাস্থ্যের স্বার্থে আমরা এই আলোচনার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী। ৬ আমরা চাই তাড়াতাড়ি জনসাধারণের জন্যেই সমাধান আনুন মুখ্যমন্ত্রী। আমরা কাজে ফিরতে বদ্ধপরিকর।
৭ আমরা চাই এই স্থান মুখ্যমন্ত্রী নিজেই বেছে নিন।

প্রসঙ্গত এই নিয়ে ছয় দিনে পড়ল চিকিৎসকদের কর্মবিরতি। এর জেরে কার্যত ভেঙেই পড়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থা। প্রশাসন ও ডাক্তাররা পরস্পরের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন ক্রমাগত। মুখ্যমন্ত্রী নিজে এসএসকেএম-এ গিয়ে এসমা অ্যাক্টের ভয় দেখালে  আরও জলঘোলাই হয়েছে। জুনিয়র ডাক্তাররা কোনও মতেই রাজি নন নবান্নে যেতে, এমনকী তাঁরা রাজভবনে যেতেও রাজি নন। এই টালবাহানার মাশুল দেবে আর কত সাধারণ মানুষ? সে কথা ভাববে কে?