আপাতত বিপদ্মুক্ত হবু চিকিৎসক পরিবাহ মুখোপাধ্যায়। কিন্তু রাজ্য জুড়ে বারবার চলতে থাকা চিকিৎসক নিগ্রহের ঘটনায় এবার পাল্টা দিতে শুরু করেছেন রাজ্যের চিকিৎসকরা। তাঁরা আগামীকাল সকাল নটা থেকে রাত নটা পর্যন্ত চিকিৎসকদের গণছুটির আবেদন জানিয়েছেন জয়েন্ট প্লাটফর্ম অফ ডক্টরস-এর কাছে। এই আবেদনে সম্মতি মিললে সমস্ত সরকারি হাসপাতালের আউটডোর বন্ধ হবে। শুধু খোলা থাকবে জরুরি পরিষেবা বিভাগ।

ঘটনার সূত্রপাত সোমবার বিকেলে। চিকিৎসায় গাফিলতির জেরে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে, এই অভিযোগে হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন মৃতের পরিজনরা। রাতের দিকে হাসপাতালে কর্তব্যরত এক জুনিয়র চিকিৎসক পরিবাহ মুখোপাধ্যায়কে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তাঁর ফ্রণ্টাল লোবে লাগে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ইনস্টিটিউট অফ নিউরো সাইন্সে। এর পরেই নিরাপত্তার দাবিতে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন জুনিয়র ডাক্তাররা। এ দিন সকালে ওপিডি পরিষেবাও বন্ধ করে দেন তাঁরা। হাসপাতালের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন তাঁরা। 

এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসে চিকিৎসকমহল। বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, কল্যাণীতে কর্মবিরতি ঘোষণা করে চিকিৎসকরা। কলকাতার বাকি হাসপাতালগুলি থেকেও আসে  সমর্থন। আগামী কাল গণছুটির দাবি জানান সকলে। এই ছুটি অনুমোদন পেলে রাজ্য জুড়ে বন্ধ হবে চিকিৎসা পরিষেবা। 

এই মুহূর্তে গোটা দেশের স্বাস্থ্যকাঠামোই অদ্ভুত। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোশিয়ানের রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে আমাদের দেশে প্রতি ১০,১৮৯ জন পিছু চিকিৎসক সংখ্যা মাত্র ১!  ২,০৪৬ জন মানুষ পিছু হাসপাতালে বেডের সংখ্যা মাত্র ১। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রাণান্তকর খাটতে হয়। তার পরেও রোগীর পরিবারের এই হিংস্র আচরণের বিরুদ্ধে এবার রুখে দাঁড়াতে চান চিকিৎসকেরা। পূর্ণ সমর্থন মিলেছে নেটিজেনদের পক্ষ থেকে।