Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Topsia Fire: বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড তপসিয়ায়, দাউদাউ আগুনে মুহূর্তেই পুড়ে ছাই একাধিক ঝুপড়ি

ফের বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড তপসিয়ায়।  শুক্রবার  দুপুরে আচমকাই তপসিয়া ২৪ নং বাসস্ট্য়ান্ডের কাছে মজদূর পাড়ায় একটি বস্তিতে ছড়িয়ে পড়ে  লেলিহান শিখা।

Fire breaks out  near Topsia Bus stand RTB
Author
Kolkata, First Published Nov 12, 2021, 3:01 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

ফের বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ড তপসিয়ায় (Fire incident in Topsia)।  এদিন সকালে কলকাতার দক্ষিণদাড়িতে প্লাস্টিক কারখানার আগুন লাগে। তার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ফের দাউদাউ আগুন তপসিয়া বাসস্ট্য়ান্ডের কাছে বস্তি এলাকায়।ঘটনাস্থলে পৌছে গিয়েছে দমকলের ৫ ইঞ্জিন (Fire Engine)।হতাহতের কোনও খবর মেলেনি।

আরও পড়ুন, Shootout: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিবের সফরের দিনেই অঘটন, সীমান্তে BSF-র গুলিতে মৃত্যু ৩ গ্রামবাসীর

শুক্রবার কর্ম ব্যস্ত দুপুরে আচমকাই তপসিয়া ২৪ নং বাসস্ট্য়ান্ডের কাছে মজদূর পাড়ায় একটি বস্তিতে ছড়িয়ে পড়ে  লেলিহান শিখা। ইতিমধ্যেই একাধিক ঝুপড়ি সম্পূর্ণ পুড়ে ভস্মীভূত। দাহ্য পদার্থ বেশি থাকায় আগুন ছড়াতে বেশি সুবিধা হয়। উত্তর হাওয়ায় আরও উসকে যায় আগুন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ইতিমধ্য়েই ঘটনাস্থলে পৌছে গিয়েছে দমকলের ৫ ইঞ্জিন। তবে জনবহুল এলাকা হওয়ায় আগুন নেভাতে রীতিমত বেগ পেতে হচ্ছে দমকল বাহিনীকে। এই মুহূর্তে পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, আগুন এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। হতাহতের কোনও খবর মেলেনি। আগুন লাগার পর ঝুপড়ি বাসিন্দাদের নিাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে। কী কারণে আগুন লাগল, তা এখনও জানা যায়নি। তবে কেউ ইচ্ছা করেই আগুন লাগাল কিনা, তাও প্রকাশ্যে আসেনি। কলকাতার সায়েন্স সিটির পিছনের এই বস্তিতে আগুন লাগতেই বাইপাসে অফিসের দিনে যানজটও তৈরি হয়েছে।

 আরও পড়ুন, Shootout: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিবের সফরের দিনেই অঘটন, সীমান্তে BSF-র গুলিতে মৃত্যু ৩ গ্রামবাসীর 

এদিকে একইদিনে শুক্রবার সকালেই আগুন লাগে ১৭ নম্বর দক্ষিণদাড়িতে একটি প্লাস্টিক কারখানায়।সকাল ১০টা নাগাদ ১৭ নম্বর দক্ষিণদাড়িতে একটি প্লাস্টিক প্রিন্টিং কারখানায় আগুন লাগে। সকালে কারখানা থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখে স্থানীয়রা। নিমেষে বাড়তে থাকে আগুনের লেলিহান শিখা। খবর দেওয়া হয় দমকলে। দমকলের ৫টি ইঞ্জিন দেড় ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। দমকলবাহিনীর অফিসারের দাবি কারখানার মধ্যে কোনো রকম অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা ছিল না। ঘিঞ্জি জায়গা হওয়ায় আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়েচ্ছে বলেও দমকলের দাবি। তবে এলাকাবাসীদের দাবি বেআইনি ভাবেই বহুতলের মাঝে এই ধরনের কারখানা চালানো হচ্ছিল। বহুবার স্থানীয় ওয়ার্ড কো অর্ডিনেটরকে এলাকাবাসীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ জানান হয়েছে বলেও দাবি স্থানীয়দের। কী কারণে আগুন, তা তদন্ত করে দেখছে লেক টাউন থানার পুলিশ। প্রসঙ্গত,  কলকাতায় এর আগে অসংখ্যবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তাই এনিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে দিয়েছে। সব সুরক্ষা বিধি আদৌ মানা হচ্ছে কি না, রাজ্য সরকারের তরফে এই ধরনের রেস্তরাঁ সহ বহুতলের অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখা হচ্ছে কি না, এ নিয়েও প্রশ্নও উঠছে। সবথেকে বড় বিষয় হল এলাকাগুলি ঘিঞ্জি হওয়ায় আগুন নেভাতে গিয়ে আরও বেশি সমস্যার মুখে পড়তে হয় দমকলের। তপসিয়াও তার এক জ্বলন্ত উদাহরণ।

আরও দেখুন, বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

 

 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios