এনআরএস কাণ্ডে চিকিৎসক নিগ্রহে অভিযুক্ত পাঁচজনই জামিন পেয়ে গেলেন। এ দিন শিয়ালদহ আদালত অভিযুক্তদের জামিন দিয়ে দেয়। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত প্রমাণ না থাকার কারণেই তাদের জামিন দেন বিচারক। 

গত ১০ জুন কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে রোগী মৃত্যুকে কেন্দ্র করে চিকিৎসকদের নিগ্রহের অভিযোগ উঠেছিল এই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে। রোগীর আত্মীয়দের মারে গুরুতর আহত হন পরিবহ মুখোপাধ্যায় নামে এক জুনিয়র চিকিৎসক গুরুতর আহত হন। ঘটনার পরেই পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে এন্টালি থানার পুলিশ। এর পরেই চিকিৎসকদের কর্মবিরতি শুরু হয় এনআরএস হাসপাতালে। চিকিৎসকদের এই আন্দোসলন ক্রমে ছড়িয়ে পড়ে গোটা রাজ্যে। এক সপ্তাহের জন্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে গোটা রাজ্যের সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা। গোটা দেশ থেকেও এই আন্দোলনে সমর্থন পান জুনিয়র চিকিৎসকরা। 

 

কর্মবিরতি তোলার আগে চিকিৎসকরা শর্ত দিয়েছিলেন, এনআরএস কাণ্ডে ধৃতদের কড়া শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। সেই মতো জামিন অযোগ্য ধারাতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পুলিশ। জুনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে আলোচনাতেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপই করা হবে। তার পরেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ না থাকার কারণেই তাঁদের জামিন দেন বিচারক। ফলে পুলিশের তদন্ত প্রক্রিয়া নিয়েই প্রশ্ন উঠে গেল। চিকিৎসকরা আগেই অভিযোগ করেছিলেন, চিকিৎসক নিগ্রহে অভিযুক্ত অনেককেই পুলিশ গ্রেফতার করেনি। এই রায়ের বিরুদ্ধে পুলিশ উচ্চতর আদালতে যায় কি না এবং জামিনের পরিপ্রেক্ষিতে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের প্রতিক্রিয়াই বা কী হয়, সেটাই এখন দেখার।