Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Subrata Mukherjee: কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য, গান স্যালুটে শ্রদ্ধা সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে

মিছিল করে কেওড়াতলা মহাশ্মশানে মরদেহ, সুব্রতকে শেষবারের মতো দেখল অনুরাগীরা।  গান স্যালুটে মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে।

 

Followers come to the funeral procession with the body of Subrata Mukherjee at Keoratala  crematorium RTB
Author
Kolkata, First Published Nov 5, 2021, 5:11 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

কেওড়াতলা মহাশ্মশানে মন্ত্রীর মরদেহ (Dead Body)।  গান স্যালুটে রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে ( Subrata Mukherjee)  জানানো হয়েছে শেষ শ্রদ্ধা।এদিন উপস্থিত ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। এছাড়াও ছিলেন তৃণমূলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী। 

আরও পড়ুন, 'এমন দাদা যেন জন্ম জন্মান্তরে পাই', ভাইফোঁটা নিয়ে বলতে গিয়ে গলা বুজে এল সুব্রত-র বোনের

শুক্রবার প্রথমে সকালে রবীন্দ্রসদনে  সকাল ১০টা - ২টো পর্যন্ত রবীন্দ্র সদনে তাঁর দেহ শায়িত ছিল। সেখানেই তাঁর অনুগামী ও রাজনৈতিক নেতৃত্ব তাঁকে শ্রদ্ধা জানান। রবীন্দ্র সদন থেকেই সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের দেহ নিয়ে যাওয়া হয় বালিগঞ্জের বাড়ি হয়ে একডালিয়া এভারগ্রীণ ক্লাবে। সেখান থেকে শেষবারের মতো সুব্রতকে সঙ্গে নিয়ে জনসমুদ্র মিছিল করে এগিয়ে চলে  কেওড়াতলা মহাশ্মশানে। এদিন রাজ্যের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে প্রথমে গান স্যালেটে চির বিদায় জানানো হয়। তারপর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। উল্লেখ্য, একডালিয়ার পুজো সুব্রত ছাড়া ভাবাই যায় না। চলতি বছরও পুজোর দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন তিনি। প্রথামেনে পুজোর আচরণবিধিও পালন করেছিলেন। প্রথা মেনে কালী পূজাও হয়েছিল। উদ্যোক্তা হলেও তিনি কালী পুজোয় সসামিল থাকতে পারেননি। কালী পুজোর দিনেই তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ ক্লাবের সদস্যরা।

আরও পড়ুন, Subrata Mukherjee-'নে, আজ থেকে ধুতি-পাঞ্জাবি পরে প্রচার করবি', প্রিয়র পথেই এগিয়ে গেলেন সুব্রত

 প্রসঙ্গত, দীর্ঘ দিন ধরেই তিনি বাংলার রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ১৯৭২ সালের দিন ভয়ঙ্কর দিনগুলিতে তিনি বাংলারব মন্ত্রী ছিলেন। মাত্র ২৬ বছর বয়ছে সিদ্ধার্থ শঙ্কর রায়েক মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭২-র দিনগুলিতে  রাজ্যের তথ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলেছিলেন তিনি।  একটা সময় বাংলার কংগ্রেসের প্রথম সারির নেতাদের মধ্যে ছিলেন তিনি। কিন্তু ২০০০ সালে কংগ্রেস ছেড়ে যোগদেন তৃণমূল কংগ্রেসে।  ২০০১ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীকে জিতে  সুব্রত মুখোপাধ্যায় কলকাতা পুরসভার মেয়র হন। কিন্তু তারপর থেকেই বেশ কয়েকটি কারণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর দূরত্ব বাড়তে থাকে। কলকাতা পুরভোটে আদালা জোট করে  লড়াই করেন। তিনি জিতলেও তাঁর নেতৃত্বাধীন ডোট পরাজিত হয়। তারপর তিনি কংগ্রেসে ফিরে যান। কিন্তু ২০১০ সালে আবার তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন। তারপর আমৃত্যু সুব্রত মুখোপাধ্যায় তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গেই ছিলেন। ২০১১ সালে রাজ্যের পালাবদলের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি। সেই ময় তিনি পঞ্চায়েত মন্ত্রী হন। পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েকর দায়িত্ব থাকা জনস্বাস্থ্য দফতরেরও দায়িত্ব সামলেছিলেন তিনি। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচবেও তাঁর কেন্দ্র বালিগঞ্জ থেকে জিতেছিলেন তিনি। তবে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। 

আরও দেখুন, বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios