রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ক্রমশই বেড়ে চলেছে। যার জেরে চলছে লকডাউন। যারা জেরে অর্থনৈতিক অবস্থাতেও প্রভাব পড়েছে। কিন্তু এরই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই ডেঙ্গি মোকাবিলায় রীতিমত সতর্ক হল রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন, কোন ওষুধে কুপোকাত করোনা, কত ডোজ দিচ্ছেন রাজ্য়ের ডাক্তাররা


রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি এ বিষয় নিয়ে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে বৈঠক করেন।  লকডাউনের মধ্যেই, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ডেঙ্গি নিয়ে পুর-এলাকাগুলিতে সচেতনতা কর্মসূচি শুরু করতে চাইছে পুর দপ্তর। উল্লেখ্য়, ২০১৯ সালের নভেম্বর পর্যন্ত রাজ্যে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গিতে। ২০১৮ তে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৪৪। এরপরই স্থির হয় রাজ্যের প্রতি জেলার জন্য পুর এবং নগরোন্নয়ন দপ্তরের এক যুগ্মসচিব পদমর্যাদার আধিকারিককে দায়িত্ব দেওয়া হবে।  পৌরসভার চেয়ারম্যান ও এগজিকিউটিভ অফিসারের সঙ্গে এঁরাই যোগাযোগ করে জঞ্জাল সাফাই, জমা জলের বিরুদ্ধে অভিযানের কাজে নজরদারি চালাবেন। সাধারণ মানুষের মধ্যে ডেঙ্গি-বিরোধী সচেতনতার প্রচার চালানোর উদ্য়োগ নেওয়া হবে।

 আরও পড়ুন, লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকদের তিনি প্রাণের মানুষ, দুবেলা পেট ভরে তাঁদেরকে খাওয়াচ্ছেন পাটুলির দাশু সাহা

অপরদিকে, প্রতি জেলায় নোডাল অফিসার হিসেবে কাজ করবেন একজন করে স্বাস্থ্য আধিকারিক। রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোমবারই ডেঙ্গি রুখতে রাজ্যের পুর এবং নগরোন্নয়ন সচিব সুব্রত গুপ্ত এবং স্বাস্থ্য দপ্তরের যুগ্ম সচিব শরদ দ্বিবেদীকে দায়িত্ব দেন।

 

 

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা