আগামী ৩০ মার্চ পর্যন্ত এই রাজ্যে জারি থাকবে লকডাউন। শনিবার নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে এই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই বৈঠকেই দেশে লকডাউন আরও ১৫ দিন বাড়ানো নিয়ে আলোচনা হয়।

আরও পড়ুন, পার্ক সার্কাসের বেসরকারি হাসপাতালে প্রৌঢ়ের মৃত্য়ু, করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই অভিযোগ তুলল পরিবার

মোদীর সঙ্গে বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লকডাউন বাড়ানোর পক্ষে সহমত প্রকাশ করেন।  এদিন নবান্নে  রাজ্যেও ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানোর ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠেক লকডাউন বাড়ানো নিয়ে কথা হয়েছে৷ আমরাও লকডাউন বাড়ানোর পক্ষে মত দিয়েছি৷ বলেছি আন্তর্জাতিক বিমান চালানো যাবে না।' মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, কিছু কিছু এলাকায় বিশেষ নজরদারি চালানো হবে। সীমান্ত এলাকাতেও বাড়তি নজর দেওয়া হবে।  মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, শুধু আন্তর্জাতিক সীমান্ত নয়, পাশের তিনটি রাজ্যের সীমান্তও সিল করে দেওয়া হবে। যাতে ভিন রাজ্যের কেউ  ঢুকে পড়তে না পারেন। 

আরও পড়ুন, রাজ্যেই বানাবে এবার করোনার ওষুধ, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন তৈরী করবে 'বেঙ্গল কেমিক্যাল'


অপরদিকে, রাজ্য়বাসীকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। রাস্তায় কোনরকম ভিড় বা জমায়েত কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না, জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, 'অনুগ্রহ করে বলছি, লকডাউন মানুন৷ বাড়িতে থাকুন৷ সকাল ১০টা থেকে সন্ধে ৬টা পর্যন্ত মুদির দোকান খোলা থাকবে। দূরে থেকে বাজার করুন। সব ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান বাড়িতে বসে পালন করুন৷ রাস্তায় অযথা ভিড় করবেন না৷' উল্লেখ্য়, ওডিশা, পাঞ্জাবের পর বাংলাও লকডাউনের মেয়াদ বাড়ল।

 

 

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা