বিলম্ব হলেও শুরু হতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত মুখ্যমন্ত্রী-জুনিয়র ডাক্তার বৈঠক।

আড়াইটের সময়ে জুনিয়র ডাক্তাররা পৌঁছবেন নবান্নে। বৈঠক শুরু হবে ৩টেয়, এমনটাই কথা ছিল। কিন্তু লাইভ টেলিকাস্ট নিয়ে টালবাহানার কারণে পিছিয়ে যায় সেই বৈঠকও। 

মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে নবান্নে দেখা করার বিষয়ে জুনিয়র ডাক্তাররা প্রাথমিক ভাবে রাজিও হয়েছিলেন। তবে শর্ত ছিল লাইভ টেলিকাস্ট করতে হবে। এদিকে স্বাস্থ্য় শিক্ষা আধিকর্তা প্রদীপ মিত্র জানিয়ে দেন, এই আলোচনায় সংবাদমাধ্য়মকে রাখতে চান না তাঁরা। তাঁর পরেই এদিন ফের পিছিয়ে আসেন জুনিয়র ডাক্তাররা। তাঁরা বলেন, জনতার স্বার্থেই এই বৈঠকে মিডিয়ার থাকা উচিত।  

এনআরএস-এর ছাত্ররা অবস্থানে অনড় ছিলেন তখন। কিন্তু এই টালবাহানায় পেরিয়ে যাচ্ছে নির্ধারিত সময়ও। এই সময়েই মুখ্যমন্ত্রী ফের রাশ ধরলেন। 

প্রশাসনের তরফে বলা হচ্ছে, নিজস্ব উদ্যোগেই লাইভ সম্প্রচার করার উদ্যোগ নেবে রাজ্য। তবে সংবাদমাধ্যমকে রাখতে চান না তাঁরা। এই মর্মে চিঠিও দিয়েছেন অ্যাডিশানাল চিফ সেক্রেটারি। কিন্তু কারা করবেন এই লাইভ কভারেজের ব্যবস্থা? নবান্ন সূত্রে খবর, এই জন্যে তিন থেকে চারজনকে ঢুকতে দেওয়া হবে। তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে সংবাদমাধ্যম ওই ভিডিও পাবে। এই খবর পেয়েই ছাত্ররা সিদ্ধান্ত নেন  মিটিং-এ যোগ দেবেন। কার্যত তাঁদের সমস্ত শর্ত প্রশাসন মেনে নেওয়ায় তাঁরা আর নিমরাজি হননি রোগীদের স্বার্থের কথা ভেবে।  মোট ৩১ জন সদস্য যাবে নবান্নের রুদ্ধদ্বার মিটিংয়ে।

ইতিমধ্যেই চিকিৎসকদের নিয়ে যাওয়ার জন্যে বাস চলে এসেছে এনআরএস হাসপাতালে।