ফের মেট্রোয় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা এক ব্য়ক্তির। রবিবার সাতসকালে রবীন্দ্র সরোবর মেট্রো স্টেশনের ডাউন লাইনে ঝাঁপ দেন তিনি। মেট্রো কর্তৃপক্ষের তৎপরতায় ইতিমধ্যেই উদ্ধার করার চেষ্টা চলছে। তবে এই ঘটনায় ব্যহত হয়েছে মেট্রো পরিষেবা। চরম ভোগান্তির শিকারযাত্রীরা।

আরও পড়ুন, মাস্কের ভেতর কোনও চিরকূট নেই তো, পরীক্ষাকেন্দ্রের ভেতর ধন্দে শিক্ষকরা


মেট্রো সূত্রে খবর, রবীন্দ্র সরোবর মেট্রোর লাইনে ঝাপ দিয়ে আত্মহত্য়া চেষ্টা করেন এক ব্য়ক্তি। রবিবার সকাল ১০টা ৩৫ নাগাদ ট্রেন প্লাটফর্মে ঢুকতেই ঝাঁপ দেন ওই ব্য়ক্তি। তৎক্ষণাৎ আপৎকালীন ব্রেক কষেন মেট্রোর চালক। কিন্তু তাতেও দুর্ঘটনা এড়ানো যায়নি। ছুটির দিন সকালে স্টেশন ফাঁকা থাকার সুযোগই নিয়েছেন ওই ব্য়ক্তি। এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই ব্য়হত হয়েছে মেট্রো পরিষেবা। ইতিমধ্য়েই উদ্ধারকাজ চলছে। তবে আপাতত দমদম থেকে ময়দান ও যতীন দাস পার্ক থেকে কবি সুভাষ লাইনে মেট্রো চলছে।

আরও পড়ুন, জল্পনায় জল ঢেলে রত্না বললেন, "বৈশাখীর সঙ্গে বৈঠকের কোনও সম্পর্কই নেই, আমি নিজেই সরে এসেছি"

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য়, মার্চের শুরুতেই  মেট্রোয় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল এক তরুণী।গীতাঞ্জলি মেট্রো স্টেশনে রীতিমত যাত্রীদের ভিড় ছিল। আর সেই সময়ই কবি সুভাষগামী মেট্রো স্টেশন ছাড়ার মুহূর্তেই লাইনে ঝাঁপ দেন বছর পঁচিশের এক তরুণী। সজাগ চালক মুহূর্তেই ব্রেক কষে মেট্রো থামিয়ে দেন। এরপরই খবর পৌছাতেই মেট্রো কর্তৃপক্ষ উদ্ধারকাজে নেমে পড়ে। শেষমেষ বেশ খানিকটা সময়ের পর উদ্ধার করা হয়েছিল ওই তরুণীকে। সেবারও ব্যহত হয়েছিল মেট্রো পরিষেবা। বারবার একই ঘটনায় কার্যত বিরক্ত নিত্য় যাত্রীরা। যদিও ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোতে সুইসাইড প্রোটেক্ট দরজা লাগানো হয়েছে। কিন্তু পুরোনো স্টেশন গুলিতে একই ছবি বারবার উঠে আসছে বলে অভিযোগ নিত্য় যাত্রীদের।

আরও পড়ুন, করোনা মুক্ত শরীর, বেলেঘাটা আইডি থেকে ছেড়ে দেওয়া হল সকলকে