জনতা কারফিউ-এর মধ্য়েও চালু থাকবে কলকাতা মেট্রো পরিষেবা।  তবে রবিবার ১২৪টি ট্রেনের বদলে চলবে মাত্র ৫৪টি ট্রেন। আধঘণ্টা পরপর মিলবে পরিষেবা। বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানাল মেট্রো কর্তৃপক্ষ। যদিও প্রধানমন্ত্রীর জলতা  কারফিউ ঘোষণা করার পরই শনিবার রাত থেকে বন্ধ করে দেওয়া হবে ট্রেনের পরিষেবা।

করোনা ভাইরাস নিয়ে দমদম জেলে ধুন্ধুমার, বন্দিদের দুই গোষ্ঠির সংঘর্ষে রণক্ষেত্র এলাকা

করোনার থাবা ভারতে। প্রকোপ আটকাতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। রবিবার জমায়ের ঠেকাতে বৃহস্পতিবারই জনতা কার্ফুর কথা ঘোষণা করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। রবিবার সকাল সাতটা থেকে শুরু করে রাত নটা পর্যন্ত কার্ফু জারি করার ফলে এবার একাধিক রেল পরিষেবা বন্ধ রাখার কথা জানানো হল।

রাজ্য়ে আজ থেকে বন্ধ বার-রোস্তরাঁ, করোনা কোপে ঝাঁপ বন্ধ স্পা-পার্লারের

শুক্রবার বাতিল হয়েছে মোটের ওপর ৯০টি ট্রেন। এখনও পর্যন্ত করোনার প্রকোপ ঠেকাতে বাতিল হয়েছে ২৪৫টি ট্রেন। প্রয়োজন ছাড়া দিল্লি মেট্রোতেও যাত্রীদের উঠতে নিষেধ করা হয়েছে। এমনই পরিস্থিতিতে জনতা কার্ফু সার্থক করতে শনিবার রাত বারোটা থেকেই বন্ধ রাখা হবে রেল চলাচল। ভোর চারটে থেকে বন্ধ করা হবে দুর পাল্লার ট্রেন।

১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত উচ্চ মাধ্যমিক , করোনার ভয়ে বাতিল ২৩-২৫ মার্চের পরীক্ষা.

 রবিবারই জনতা কারফিউয়ের ডাক দিয়েছেন  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  সেই অনুযায়ী আজ রাত থেকেই রেল পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল বোর্ড। আগামীকাল সকাল ৭টা থেকে রাত নটা পর্যন্ত সবাইকে ঘরে থাকার কথা বলেছেন মোদী। বিকেল পাঁচটার সময় ছাদে, বারান্দায় দাঁডি়য়ে করোনা মোকাবিলায় যে স্বাস্থ্য় করমীরা  কাজ করছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞাতা  জানাতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। 

কাসর,ঘণ্টা বাজিয়ে তাঁদের অভিবাদন জানানোর আ্হবান জানিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্য়েই প্রধানমন্ত্রী এই ডাকে সাড়া পরে গিয়েছে। সোশ্য়াল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর  এই ডাককে স্বাগত জানিয়েছেন বহু মানুষ । দেশের বিপদের সময়ে সবাইকে সাহস জুগিয়ে একত্রিত করতে মোদীর এই ডাক কার্যকরী বলে মনে করছেন তাঁরা।