ছবিঃ লাইম এন লাইট

পরিচালকঃ রেশমি মিত্র

অভিনেতা-অভিনেত্রীঃ ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, জিতু কামাল, অর্জুন চক্রবর্তী, শ্রীলা মজুমদার, 

গল্পঃ 'লাইম এন লাইট' ছবির গল্প আবর্তিত হয়েছে, একটি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের জুনিয়র শিল্পী অর্চনাকে ঘিরে। ছবিতে জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রীময়ী সেনকে, অর্চনা তাঁর জীবনের আইডল হিসাবে মানেন। মজার বিষয় হল, 'লাইম এন লাইট' ছবিতে তাদের দ্বৈত চরিত্রের চেহারাতে কয়েকটি মিল রয়েছে। শ্রীময়ী একদিন দুর্ঘটনার মুখোমুখি হন এবং ডাক্তাররা তাকে জানিয়ে দেন যে সুস্থ হতে কমপক্ষে এক বছর সময় লাগবে। শ্রীময়ী চিকিৎসার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান। এদিকে অর্চনা তাঁর জীবনের সঙ্গে সামঞ্জস্য করতে অসুবিধার মুখোমুখি হন। যখন জনপ্রিয় অভিনেতা অয়নজিৎ তার হয়ে পড়ে, অর্চনা নিজেকে শ্রীময়ী হিসাবে ভাবতে শুরু করে এবং তাদের মধ্যে সম্পর্কের বিকাশ ঘটে। আর হঠাৎ একদিন যখন আসল শ্রীময়ী  ফিরলেন, তারপরেই 'লাইমলাইট' এর গল্পে নতুন মোড় আসে । 

অভিনয়ঃ  প্রায় বহুদিন পর আবার ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গেল। এর আগে তিনি সুজিত মন্ডলের ছবিতে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন বটে, তবে এবারটায় তা সম্পূর্ণ আলাদা। দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় ফোটাতে গিয়ে ঋতুপর্ণা যথেষ্ট পরিশ্রম করেছেন। কারণ যেখানে ছবিতে শ্রীময়ী ও অর্চনা একে অপরের ছদ্মবেশ ধরে, সেখানে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের গলার স্বর আর অভিব্য়াক্তি যাবতীয় মেকাপকেও হার মানিয়ে দেয়। অপরদিকে জিতু কামালের অভিনয়ও মনে দাগ কাটে। তার অভিনয় করা চরিত্র সত্য়িই কথা বলে। হল ছেড়ে বেরোনোর পর মনে হয় বড় পর্দা-ছোট পর্দা বলে কিছুই হয়না, জিতু মানুষের মনের ভিতর ঢুকতে জানে। এছাড়াও বরাবরের মত অনবদ্য় অভিনয়ে ছিলেন, অর্জুন চক্রবর্তী  এবং শ্রীলা মজুমদার।

চিত্রনাট্য়ঃ  ছবির চিত্রনাট্য় যথেষ্ট শক্তিশালী। বলা যায় এর জন্য়ই ছবি দেখে সবার পয়সা উসুল হবে। ছবিতে প্রেম ও প্রতিভার বুনন খুবই সুন্দর করে হয়েছে। যা দর্শকরা ফিরে ফিরে দেখবেন।   

সিনেমাটোগ্রাফিঃ  'লাইম এন লাইট' ছবির ফ্রেম গুলি খুব সহজেই দর্শকের মন টানবে। যেখানে ছবির মধ্য়ে ছবি থাকে, সেখানে ছবিতে  সিনেমাটোগ্রাফির একটা বড় ভূমিকা থাকে। বলা যায় সেই কঠিন পরীক্ষায় ভাল ভাবেই ফ্রেম সাজিয়েছেন এই ছবির পরিচালক। আর ক্য়ামেরা অ্য়াঙ্গেলের দিক থেকেও আরও একধাপ এগিয়ে থাকল  'লাইম এন লাইট'।

পরিচালনাঃ  একেবারেই অন্য় স্বাদের ছবি তৈরি করলেন পরিচালক রেশমি মিত্র। বহুদিন পর সপরিবারে গিয়ে দেখার মত ছবিই হল  'লাইম এন লাইট'।  দ্বৈত চরিত্রের রূপ দিতে গিয়ে তাঁর এই ছবির পরিচালনা সার্থক।