শুরু হল বিধানসভার অধিবেশন। বিধানসভার বাজেট অধিবেশনে এসে পৌছলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে স্বাগত জানালেন। বিধানচন্দ্র রায়ের মূর্তিতে মাল্যদান করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছিলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এলেন মদন মিত্র, জুন মালিয়া, অগ্নিমিত্রা পল, শুভেন্দু অধিকারীরাও।

 

আরও পড়ুন, 'নথিতে ধনখড় তাহলে কে', কী সেই 'জৈন হাওয়ালা মামলা', তৃণমূলের রহস্যভেদে চাপের মুখে রাজ্যপাল

 

 

উল্লেখ্য, ২ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে নতুন সরকারের প্রথম বিধানসভার অধিবেশন। সেই অধিবেশনের কর্মপন্থা নিয়ে আলোচনার জন্য আগে সর্বদল বৈঠকের ডাক দেয় সরকার। সূত্রের খবর, কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে উত্তাল রাজ্য, এই ইস্যু নিয়ে নিশানা করতে পারে গেরুয়া শিবির। তাই  প্রথম দিন থেকেই বিধানসভা  সরগরম হওয়ার  আশঙ্কা রাজনৈতিক মহলের।সূত্রের খবর, এবারের বাজেট অধিবেশনে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের ভূমিকায় নজর থাকতে চলেছে। 

 

 

প্রসঙ্গত, কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ডে প্রধান অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের সঙ্গে শাসক দলের শীর্ষ নেতা মন্ত্রীর ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। উঠে এসেছে ফলক ইস্যু। এহেন পরিস্থিতি কেন্দ্রীয় তদন্তের দাবি জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য় মন্ত্রীর কাছে চিঠি লিখেছেন শুভেন্দু অধিকারী। প্রতিবাদ জানিয়েছেন লকেট চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে বিজেপির শীর্ষ নের্তৃত্ব।  দিলীপ ঘোষ  বলেছেন, কলকাতায় ভ্য়াকসিনকাণ্ডে ধৃতকে সরকার নিরাপত্তা দিয়েছে।  ধরা পড়ে গেলে একটা তদন্ত কমিশন গড়ে দায় সারা হচ্ছে। এই ঘটনায় কলকাতা পুরসভাও জড়িত। অথচ এখন নেতারা বলছেন চিনি না। রাজ্য চাইলে এই ঘটনার তদন্ত সিবিআই-কে দিয়ে করাতে পারত।। কিন্তু তা তারা করাচ্ছে না। কারণ তাঁধের নেতারাই জড়িত।'  আর এবার এই ইস্যুতেই তৃণমূলের সরকারকে নিশানা করতে চায় গেরুয়া শিবির।