রাজ্য বিজেপির সাংগঠনিক বিষয় খতিয়ে দেখতে রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ। আগামী মাসের পাঁচ এবং ছয় নভেম্বর রাজ্যে আসছেন তিনি। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন এই দুই দিন বিজেপির সাংগঠনিক চারটি জোনের সঙ্গে বৈঠক করবেন। 

আরও পড়ুন, 'বাংলায় গণতান্ত্রিক পরিবেশ না থাকলে রাষ্ট্রপতি শাসন', বিস্ফোরক দিলীপ

 

 

জেপি নাড্ডার সফর বাতিল, কলকাতা আসবেন অমিত শাহ


শনিবার সকালে নিউটাউনের ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমনে আসেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সকাল ৫টা ৪৫ মিনিট নাগাদ ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমনে আসেন তিনি। ইকোপার্ক থেকে ৭ টা নাগাদ প্রাতঃভ্রমন সেরে বেরিয়ে যান তিনি। তিনি বলেন, প্রথম দিন অর্থাৎ ৫ নভেম্বর রাঢ়বঙ্গ এবং মেদিনীপুর জোন এর সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। পরবর্তীতে ৬ নভেম্বর তিনি বৈঠক করবেন কলকাতা এবং নবদ্বীপ জোন এর সঙ্গে। তবে এই বৈঠক কোথায় হবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এই সফরে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার আসার কথা থাকলেও দিল্লি থেকে অমিত শাহের আসার কথা জানানো হয়েছে।' যদিও দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন আগে অমিত শাহের আসার কথা ঠিক ছিল। কিন্তু তার শারীরিক সমস্যা থাকায় পরিবর্তিত হয় তার সফর।' উল্লেখ্য, সকালে দিলীপ ঘোষের বলার পর, বিকেলে আসা খবরে অমিত শাহের বৈঠকের দিন এবং জায়গা নিশ্চিত করা হয়। 

 

 

বাংলায় দুটি বৈঠক কোথায়-কবে

তিনি আরও জানান,উত্তরবঙ্গে নিজেদের শক্তি বৃদ্ধি করতে পারলেও দক্ষিণবঙ্গ নিয়ে কিছুটা হলেও চিন্তা রয়েছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। সংগঠন আগের তুলনায় অনেকটা ভালো হলেও তৃণমূলকে নাস্তানাবুদ করার মত শক্তি এখনও তৈরি করতে পারেনি রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে ২০২১ নির্বাচনের আগে নিজেদের সাংগঠনিক দুর্বলতাকে মজবুত করতে চাইছে বিজেপি। সেই জায়গা থেকে অমিত শাহের সফর বেশ গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদিকে রাজ্য বিজেপির অন্তরে শীর্ষ নেতৃত্বের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দল এর অভিযোগ বারবার প্রকাশ্যে এসেছে। নির্বাচনের আগেই গোষ্ঠী কোন্দলকে মোটেই ভালো চোখে দেখছে না সর্বভারতীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এবারের দক্ষিণবঙ্গ সফরে দলের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে গোষ্ঠী কোন্দল মেটাতে নিশ্চয়ই বার্তা দেবেন অমিত শাহ। তবে শনিবার দুপুরের পর রাজ্য বিজেপির নেতৃত্ব চূড়ান্ত নেয়। বিকেলে সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, ৫ তারিখ বাঁকুড়া এবং ৬ তারিখ কলকাতায় বৈঠক করবেন অমিত শাহ।

 

আরও পড়ুন, মনীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ডে বড় মোড়, পঞ্জাব থেকে ৩ শার্প শুটারকে গ্রেফতার করল CID