আরও এক করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলল রাজ্য়ে। ৭৭ বছরের ওই বৃদ্ধ ভর্তি বাইপাসের অ্যাপোলা হাসপাতালে। রবিবার প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।প্রথম থেকে তাঁকে করোনা আক্রান্ত হিসাবে সন্দেহ করেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। রাখা হয় আইসোলেশন ওয়ার্ডে। গতকালই লালারসের নমুনা পাঠানো হয় নাইসেডে। রাতেই রিপোর্ট আসতেই নিশ্চিত হন চিকিৎসকরা।

আজ খোলা থাকছে সব ব্যাঙ্ক, লকডাউনেও মিলবে স্বাভাবিক পরিষেবা.

স্বাস্থ্য়ভবন সূত্রে খবর, গত তিনদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন ওই বৃদ্ধ। তার সঙ্গে ক্রমশ বাড়ছিল  শ্বাসকষ্ট। রবিবার শারিরীক অবস্থার চরম অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে আসে পরিবার। ইতিমধ্য়েই  আক্রান্তের শরীরে কোথা থেকে ভাইরাসের সংক্রমম হয়েছে তা খুঁজে দেখছে স্বাস্থ্য় দফতর। সম্প্রতি ভিন রাজ্য়ে বা দেশে গিয়েচিলেন কিনা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে তাও। অসুস্থ থাকাকালীন ওই বৃদ্ধ যাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাদেরও আলাদা থাকার কথা বলা হচ্ছে।

সুস্থ রাজ্য়ের তিন করোনা আক্রান্ত, বুকে বল পেল রাজ্য়বাসী.

এদিকে, রাজ্যের বুকে করোনার কোপে মৃত্যু বেড়ে দাঁড়ালো দুই। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে প্রাণ হারালেন কালিম্পং-এর আক্রান্ত মহিলা। ইতিমধ্যেই করোনার কোপে প্রাণ হারিয়েছে এক, আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ২২। এমনই অবস্থায় সামনে আসে উত্তরবঙ্গে প্রথম করোনা আক্রান্তের খবর। কালিম্পঙের এই মহিলা জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ২৬ মার্চ। শরীরে করোনার উপসর্গ থাকায় ডাক্তারের পরামর্শে করোনা টেস্ট করা হয়।

আরও পড়ুন: সীমানা সিল করুন এক্ষুনি, নবান্নে চিঠি পাঠাল মোদী সরকার

রবিবার গভীর রাতে মৃত্যু ঘটে কালিম্পঙ-এর মহিলার। বয়স হয়েছিল ৪৪ বছর। দিন সাতেক আগে শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে স্থানীয় এক হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। সেখান থেকেই তাঁর বিস্তারিত তথ্য জানার পরই সতর্ক হন চিকিৎসকরা। সন্দেহের বসে চিকিৎসকেরা করোনা টেস্ট করানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। প্রাথমিকভাবে মহিলা চিকিৎসায় সাড়া দিলেও পরবর্তীতে শরীররে অবনতী ঘটে।