চলন্ত ট্রেনে দৌড়ে উঠতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু উঠতে তো পারলেনই না, উল্টে হাত ফসকে চলে যাচ্ছিলেন চাকার তলায়! স্টেশনে কর্তব্য়রত আরপিএফ কর্মীদের তৎপরতায় প্রাণে বাঁচলেন এক যাত্রী। তবে মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন তিনি। শুক্রবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর স্টেশনে।

আরও পড়ুন: মাধ্যমিক চলাকালীন বিষ খেয়ে আত্মহত্য়ার চেষ্টা, বরাত জোরে রক্ষা পেল ছাত্রী

ঘড়ি কাটা তখন দশটা ছুঁইছঁই। মেদিনীপুর স্টেশন ছেড়ে চলে যাচ্ছে আসানসোল-খড়গপুর প্যাসেঞ্জার। ট্রেন ধরার জন্য প্ল্যাটফর্ম ধরে ছুটতে শুরু করেন সুজয় ঘোষ নামে এক যাত্রী। একটি কামরার কাছাকাছি পৌঁছেও গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু দরজার হাতলটি ধরতে গিয়েই ঘটে বিপত্তি। হাত ফসকে ট্রেন ও প্ল্যাটফর্মের ফাঁকে পড়ে যান সুজয়! একের পর এক বগির ধাক্কায় যখন তিনি ক্রমশই ট্রেনের নিচে চলে যাচ্ছিলেন, তখনই ঘটনাটি নজরে পড়ে স্টেশনে কর্তব্যরত আরপিএফ-এর কনস্টেবলের। কোনওমতে পা ধরে টেনে ওই যাত্রীকে উদ্ধার করেন তিনি। দুর্ঘটনার মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন, ওই যাত্রীকে ভর্তি করা হয়েছে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে।

আরও পড়ুন: কুকুরের কামড়ে রক্তাক্ত রামভক্ত, হনুমান ধরতে নাজেহাল বনদপ্তর

জানা গিয়েছে, খড়্গপুরের বারবেটিয়া এলাকার বাড়ি সুজয় ঘোষের। এখনও যে বেঁচে আছেন, শনিবার হাসপাতালে বেডে শুয়ে যেন বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না! যে আরপিএফ কর্মী  তাঁকে উদ্ধার করেছেন, তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সুজয়ের শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। ভয়ের কোনও কারণ নেই।