পরিচালকঃ হরনাথ চক্রবর্তী

অভিনেতা-অভিনেত্রীঃ সোহম চক্রবর্তী, বনি সেনগুপ্ত, গৌরব চক্রবর্তী, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়

গল্পঃ ভুতের ভয়ে কুঁকড়ে থাকা মানুষদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে তিন বন্ধু খুলে ফেললেন নতুন সংস্থা। সমস্যায় পরলেই সাহায্য মিলবে তাদের থেকে। এমনই তিন বন্ধুর গল্পে আসে নতুন কেস। ভুত তারাতে ডাক পরে সুদুর গ্রাম থেকে। সেখান গিয়ে নয়া বিপাক। ভুতের ভয় নিজেদেরই হল নাকানি চোবানি অবস্থা। কিন্তু এখানেই শেষ নয়, পরিত্রাণের রাস্তা বাড়করতে গিয়ে গল্প গেল উল্টে। দিশেহারা হারা তিন বন্ধুই ভুতের খপ্পরে পরে নাজেহাল।  

অভিনয়ঃ অনবদ্য তিন অভিনেতার অভিনয়। সোহম-বনি ও গৌরবের মেল বন্ধনে ছবিটি এক ভিন্নমাত্রা পেল। হাসি, মজার মাঝে সুন্দর ব্যালেন্স রেখেই পর্দায় নিজেদের চরিত্র তুলেধরলেন তারা। একদিকে যেমন এই তিন তারকার উপস্থিতিতে ছবিতে টানটান উত্তেজনা ধরা পড়ল, তেমনই অন্যদিকে শুভাশিস, বিশ্বনাথ ও লামার উপস্থিতিতে ততটা চমক রইল না পর্দায়। অন্যদিকে ছবির দুই অর্ধে শ্রাবন্তীর দুটি রূপ সুন্দরভাবে ফুটে উঠল গল্পের চাহিদা অনুযায়ী। 

চিত্রনাট্যঃ ছবির চিত্রনাট্য জুড়ে কেবলই নিপাট মজা। কোনও টানটান উত্তেজনা, সিরিয়াস বিষয়ের ওপর তৈরি নয় এই ছবি। ফলেই হালকা মেজাজে লেখা চিত্রনাট্যে বেশ জমে উঠল প্রেক্ষাপট। ভুত, রোমাঞ্চকর ও হাস্যরসে ভপুর ছবিটিতে মাঝে মধ্যে মনে হতেই পারে কোথাও যেন এক্স ফ্যাক্টরের অভাব। কোথাও গিয়ে হয়তো চিত্রনাট্যের বেশ কিছুটা অংশ অস্বাভাবিক হলেও তা দুর্বলতারও ছাপ রেখে গেল। তাই মোটের ওপর ছবির চিত্রনাট্যে খানিক খামতি নজরে পড়ল দর্শকের। 

সিনেমাটোগ্রাফিঃ ছবির সিনেম্যাটোগ্রাফিতে বিশেষ কোনও কৌশল নজরে না পড়লেও হরনাথ চক্রবর্তীর ছবির ক্যামেরা এক ভিন্ন স্বাদেই ধরা দিল এই ছবিতে। ফলেই উল্লেখযোগ্য ক্যামেরার উপস্থিতি ছবিতে না থাকলেও তা এক বিশেষত্বের পরিচয় দেয়। ভুতের দৃশ্যগুলো খুব যত্নের সঙ্গে শ্যুট করা হলেও, ছবির সেট ও গ্রফিক্স আরও উন্নত হতে পারত। ফলে কোথাও যেন এই বিভাগে খানিকটা পিছিয়ে পরল ভুতচক্র। 


পরিচালনাঃ  ছবির পরিচালনা অনবদ্য। পরিচালকের নাম না জানা থাকলে এটা বোঝা দায় যে ছবিটি তৈরি করেছেন হরনাথ চক্রবর্তী। ছবির দুই অর্ধেই সমান ভারসাম্য রক্ষা করলেন পরিচালক। যার ফলে কোথাও দর্শকের মনোসংযোগ হারালো না। সিরিয়ার ভুত নয়, মজার ছলে কেবলই এক গল্প বলার কায়দায় ছবিটিকে পর্দায় তুলে ধরলেন পরিচালক। তাই নিঃসন্দেহে তা প্রশংসার দাবী রাখে।