Asianet News BanglaAsianet News Bangla

গল্পের বুনটে একাধিক খামতি থাকলেও, ভরপুর বিনোদন ও অক্কির অভিনয়গুণেই মন জয় করল বেল বটম

অক্ষয় কুমার, ৫৩ বছর বয়সকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে তিনি ফিট লুকে যেভাবে এই ছবিতে ধরা দিয়েছেন, তা এক কথায় বলতে গেলে ভক্তদের মনে ঝড় তোলে। স্লিম, হ্যান্ডসম এক এজেন্ট, বাণীর পাশে বিন্দুমাত্র বেমানান নন তিনি। 

Movie review of newly release bell bottom bjc
Author
Kolkata, First Published Aug 20, 2021, 2:07 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

ছবি- বেল বটম
পরিচালক- রঞ্জিত তিওয়ারি
অভিনেতা-অভিনেত্রী- অক্ষয় কুমার, বাণী কাপুর, হুমা কুরেশি, লারা দত্ত

গল্প- বিমান হাইজ্যাক হওয়ার নানান ঘটনা প্রায়সই সামনে উঠে আসতে দেখা যায়। সেই পরিস্থিতিতে কীভাবে সকলকে বাঁচিয়ে নিয়ে ফেরার মরিয়া চেষ্টা চালায় এক শ্রেনীর মানুষ, তা গল্প হয়েই থেকে যায়। বেল বটম গল্পও ঠিক তাই, ২১০ জন যাত্রীসহ একটি বিমান হাইজ্যাক হয়। একজন আন্ডার কভার এজেন্ট, কোড নাম বেল বটম, তিনি কীভাবে সকলকে উদ্ধার করবে, এই ছবি সেই গল্পই ফুঁটিয়ে তোলে। 

Movie review of newly release bell bottom bjc

অভিনয়- অক্ষয় কুমার, ৫৩ বছর বয়সকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়ে তিনি ফিট লুকে যেভাবে এই ছবিতে ধরা দিয়েছেন, তা এক কথায় বলতে গেলে ভক্তদের মনে ঝড় তোলে। স্লিম, হ্যান্ডসম এক এজেন্ট, বাণীর পাশে বিন্দুমাত্র বেমানান নন তিনি। তাঁর স্ত্রীর ভুমিকায় বাণী অনবদ্য। এই ছবিতে যেভাবে অক্ষয় কুমারকে তুলে ধরা হয়েছে, তা এক কথায় বলতে গেলে ছবিকে এক এক্সট্রা মাইলেজ দেয়। হুমা কুরেশি ও লারা দত্ত নিজ নিজ ভুমিকায় অনবদ্য। 

চিত্রনাট্য- রঞ্জিত তিওয়ারির এই ছবি বাস্তবের দুই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৈরি। সত্তরের দশক বা আশির দশকের ঘটে যাওয়া পর পর দুই ঘটনা, র- এর আন্ডার কভার এজেন্ট কীভাবে এই প্লেনের হাইজ্যাক থেকে মুক্তিপন চাওয়া ২১০ জনকে উদ্ধার করবে, তা খুব সুন্দরভাবে ফুঁটিয়ে তোলা হয়েছে। চিত্রনাট্যের বুনট থেকে শুরু করে গল্প উপস্থাপনার ধরন, এক কথায় বলতে গেলে সবটাই যেভাবে তুলে ধরা হয়, তাতে ছবিটি দর্শকের মনে প্রভাব ফেলতে সক্ষম। 

সিনেম্যাটোগ্রাফি- অতিমারীর মধ্যেই ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে এই ছবি শ্যুট করা হয়। পাশাপাশি স্কটল্যান্ডেও এই ছবির কাজ হয় বেশ কিছুটা। সিনেমাটোগ্রাফির দিক থেকে এই ছবি বিন্দুমাত্র নিরাশ করেনা দর্শকদের। প্রতিটা ফ্রেমই খুব যত্নের সঙ্গে তৈরি, সেট থেকে শুরু করে গ্রাফিক্স, সবই যত্ন সহকারে তৈরি করা হয়। ছবির প্রতিটা ধাপে জড়িয়ে থাকা গল্পের ছক এক কথায় বলতে গেলে এই ছবিকে সার্থক করে তুলেছে। অক্ষয় কুমারের ফ্যানেরা ঠিক যে ধরনের কাজ পছন্দ করে, এই ছবি ঠিক তেমনই ধাঁচে গড়া। 

Movie review of newly release bell bottom bjc

পরিচালনা- পরিচালনার দিক থেকে তেমন কোনও খামতি চোখে পড়ে না। ছবির গল্প অনুযায়ী তা যত্ন সহকারে উপস্থাপনা করা হয়। তবে গল্পের শেষ অংশে আরও একটু ভালো কাজ করা যেত। তবে বিশাল কিছু টান টান উত্তেজনার মুহূর্ত আশা করে দেখতে বসলে নিরাশ হতে হবে। অনেক জায়গাতেই যতটা প্রয়োজন, ঠিক ততটা পর্দায় ফুঁটিয়ে ওঠা সম্ভবপর হয়নি এই ছবির ক্ষেত্রে। 

সমালোচনা- এই ছবি ১২৩ মিনিট ধরে দর্শকের মনোসংযোগ ধরে রাখতে সক্ষম। তবে ছবির প্রতিটা সেকেন্ডই দর্শকদের ধরে ধরে দেখতে হবে। গল্পের স্টোরি লাইনে একটাই রহস্য ও তথ্য নির্ভর, তা এক কথায় বলতে গেলে একটু মিস মানেই ছবির ছন্দ কেটে যাওয়া। তবে ছবির শেষ অংশটা হঠাৎ করেই যেন বেসামাল হয়ে পড়ে। হঠাৎ করেই যেন ছন্দ ভেঙে ছবিটি শেষ হয়ে যায়। তা বেশ কিছুটা হতাশ করবে। এই ছবির একাধিক খামতি থাকলেও, তা বিনোদনে কোনও অভাব রাখে না। 

Movie review of newly release bell bottom bjc

   Movie review of newly release bell bottom bjc

Movie review of newly release bell bottom bjc

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios