অবশেষে পাক প্রশাসন গ্রেফতার করল ২৬/১১ মুম্বই সন্ত্রাসবাদী হামলার মূল চক্রী তথা লস্কর-ই-তৈবা ও জামাত-উদ-দাওয়া জঙ্গি সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সইদ। জানা গিয়েছে, বুধবার লাহোর থেকে গুজরানওয়ালায় আসছিল সইদ। সেই সময়ই তাকে গ্রেফতার করে পাক পঞ্জাব পুলিশ সন্ত্রাস-বিরোধী দফতর। তাকে আপাতত জুডিশিয়াল রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে। তবে সূত্রের খবর তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগকেই আদালতে চ্যালেঞ্জ করবে বলে জানিয়েছে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের চিহ্নিত এই 'আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী'।

তবে, হাফিজের গ্রেফতারির সময়টি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। একদিন আগেই পাকিস্তান তাদের আকাশসীমা খুলে দিয়েছে। আর বৃহস্পতিবারই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছেন। পাক-মার্কিন সম্পর্ক মেরামত করাই তাঁর লক্ষ্য। মার্কিন প্রশাসন ইতিমধ্যেই হাফিজের বিরুদ্ধে প্রমাণ সংগ্রহের জন্য ১০ মিলিয়ন ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছে। সফরের আগে এই পদক্ষেপে মার্কিন প্রশাসনের মন গলানোর চেষ্টা করতে চাইলেন ইমরান, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন - জট কাটিয়ে ভারতের জন্য আকাশপথ খুলে দিল পাকিস্তান

আরও পড়ুন - বাড়তি খরচ এড়াতে মার্কিন মুলুকে বিলাসবহুল হোটেলে থাকবেন না পাক প্রধানমন্ত্রী

আরও পড়ুন - পাকিস্তানে সংস্কারের পথে প্রায় ১০০০ বছরের পুরনো শিবমন্দির

এছাড়া, 'ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স' ক্রমেই পাকিস্তানে কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী ও তাদের সংগঠনগুলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাপ বাড়াচ্ছিল ইমরান খান প্রশাসনের উপর। ইতিমধ্য়েই এই আন্তর্জাতিক সংস্থা তাদের গ্রে লিস্টে অন্তর্ভুক্ত করেছে পাকিস্তানের নাম। পাকিস্তানে বসে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের জন্য তহবিল সংগ্রহের বিরুদ্ধে পাকিস্তান যে কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে তা প্রমাণ করার জন্য ইমরান প্রশাসনকে তারা আগামী অক্টোবর মাস পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে।

তবে এই গ্রেফতারি লোক দেখানো কিনা  সেই নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। এর আগে ১২ জন সঙ্গী -সহ হাফিজের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের উদ্দেশ্য তহবিল সংগ্রহ সম্পর্কিত ২৩টি মামলা দায়ের করেছিল। কিন্তু আদালতে উপযুক্ত প্রমাণ দাখিল করতে না পারায় প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই হাফিজ জামিন পেয়ে গিয়েছে। দুদিন আগেই, চরমপন্থী মাদ্রাসা খোলার জন্য বেআইনিভাবে জমি ব্যবহারের এক মামলায় তাকে লাহোরের এক সন্ত্রাসবাদ বিরোধী আদালত প্রাক গ্রেফতারি জামিন দিয়েছিল। এদিনের এই গ্রেফতারির পরেও জামিন নিয়ে মুক্ত হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।