'দিদির আমলে মোদীর প্রকল্প পায়নি  বাংলার মানুষ', এদিন বক্তব্য়ের শুরুতেই মমতাকে নিশানা করেন অমিত শাহ।'বিজেপি ক্ষমতায় এলে উপকৃত হবে আদিবাসীরাবাড়ীতে থেকে উপার্জন করতে পারে সেই পথ তৈরি করা হবে' বলে প্রতি শ্রুতি দেন সোমবারের সভায় শাহ।

আরও পড়ুন, 'লোকসভা ভোটে মিথ্য়ে কথা বলে জিতেছিল BJP', ঝালদায় উন্নয়নের প্রশ্ন তুলে নিশানা মমতার 

এদিন তিনি বলেন, 'বাংলাকে পিছিয়ে দিয়েছে তৃণমূল সরকার।বাংলায় আজ গুন্ডারাজ চলছে। বাংলার মানুষ তৃণমূল কংগ্রেসের তোলাবাজি, কাটমানি, অনুপ্রবেশ ও হিংসার রাজনীতিকে সম্পূর্ণ রূপে প্রত্যাখ্যান করেছে  এবং বিজেপিকে আনার জন্য তাদের মন তৈরি করে ফেলেছে।উন্নয়নে বাধা দেওয়া সরকারকে উপড়ে ফেলার সময় এসে গেছে।  এখানকার সমস্ত আদিবাসী মানুষদের সন্তানরা যাতে তাদের জেলায়, তাদের বাড়ীতে থেকে উপার্জন করতে পারে সেই পথ তৈরি করা হবে। বিজেপি ক্ষমতায় এলে উপকৃত হবে আদিবাসীরা। বন্য অধিকার আইনের সুবিধা পাবেন। আদিবাসীদের শংসাপত্র নিতেও দিদির শাসনে টাকা দিতে হয়। কিন্তু আমি কথা দিচ্ছি আপনারা বিজেপি সরকার আনুন এই শংসাপত্র নিতে আর টাকা দিতে হবে না।পানীয় জলের সুবিধা পাবে জঙ্গলমহল। প্রতিটি ঘরে কলের ব্যবস্থা হবে।' তিনি আরও বলেন, 'বিজেপি সরকার গঠন হওয়ার পরই প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকে আমরা আয়ুষ্মান ভারত যোজনা নিয়ে আসব যাতে বাংলার মানুষ পাঁচ লাখ টাকা করে স্বাস্থ্য বীমার সুবিধা পায়।' এদিন তিনি কয়লাপাচার কাণ্ডও টেনে আনেন, বলেন বাংলায় অবাধে কয়লা পাচার হয়েছে। এই সরকার কয়লা পাচার আটকাতে পারেনি। এই সরকার অনুপ্রবেশ আটকাতে পারেনি।আম্ফানের ক্ষতিপূরণের টাকা চুরি করেছে তৃণমূল। আমফানের সময় চাল চুরি করে তা বাজারে বিক্রিও করেছে এই তৃণমূল।'

 

আরও পড়ুন, নন্দীগ্রামে মমতার আহত হওয়ার ঘটনার কোপে ৩ আধিকারিক, পুলিশ সুপার-জেলাশাসককে সরালো কমিশন 

 

উল্লেখ্য এদিন আচমকাই শাহ-র হেলিকপ্টারের চপারে যান্ত্রিক গলযোগ দেখা দেয়। এরপরেই  ঝাড়গ্রামের সভায় সশরীরে আর যেতে পারেননি অমিত শাহ। তাই এদিন ঝাড়গ্রামের সভার হয়ে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। যদিও এজন্য তিনি ক্ষমা চেয়ে নিয়ে বলেছেন,'আমার হেলিকপ্টারে কিছু প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে আমি ব্যক্তিগতভাবে সভায় অংশ নিতে পারিনি, তার জন্য আমি ঝাড়গ্রামের সকল মানুষের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। তবে এতো বিশাল সংখ্যক মানুষের জমায়েতের জন্য আমি আমার হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে আপনাদের আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই।'