শেষ মুহূর্ত বাংলা সফর বাতিল করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। শুক্রবার রাতেই তাঁর দুদিনের সফরে কলকাতায় আসার কথা ছিল। কিন্তু অনিবার্য কারণে তাঁর সফর বাতিল করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছে অমিত শাহের সফর বাতিল করা হয়েছে। তবে কী কারণে সফর বাতিল করা হয়েছে তা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট করে যান যায়নি। অমিত শাহ-র সফর মাঝপথে বাতিল হওয়ায় শনিবার সমস্ওত অনুষ্ঠান ও কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। তবে রবিবার বিজেপি-র সমস্ত অনুষ্ঠানগুলি এখনও বাতিল করা হয়নি। দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন যে যোগদানের পর্ব অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল তা হবেই। ফলে, বলা যেতে পারে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রবীর ঘোষাল, বৈশালী ডালমিয়া, রথিন চক্রবর্তী-রা বিজেপি-তে যোগ দিতে চললেও অমিত শাহ সেই অনুষ্ঠানে থাকছেন না।


শুক্রবার সন্ধ্যে দিল্লিতে ইজরায়েল দূতাবাসের সামনে একটি বিস্ফোরণ হয়। বিস্ফোরণে বড়সড় ক্ষতি না হলেও প্রথম থেকে বিষয়টির দিকে নজর রাখছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। সেই কারণেও তিনি সফর বাতিল করেতে পারেন বলেও মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। অন্যদিকে এদিন দুপুর থেকেই গাজিপুর সীমানা অদূরে কৃষক মহাপঞ্চায়েত উপলক্ষ্যে প্রচুর কৃষক জড়ো হয়েছেন। আগায়মিকাল অর্থাৎ শনিবার তারা দিল্লি প্রবেশের তোড়জোড় শুরু করেছে বলেও সূত্রের খবর। সবমিলিয়ে জাতীয় রাজধানীতে ২৬ জানুয়ারির মত অরাজক পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছে দিল্লি পুলিশের একাংশ। দিল্লির নিরাপত্তার দায়িত্ব তাঁর হাতে থাকায় এই মুহূর্তে তিনি দিল্লি ছাড়তে রাজি নন বলেই সূত্রের খবর। আর সেই কারণেই তিনি পূর্ব নির্ধারিত সফর স্থগিত রেখেছেন বলেই সূত্র জানাচ্ছে। 

জানা গিয়েছে, অমিত শাহর বদলে রবিবার রাজ্যে আসতে পারেন বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। তিনি না এলে সোমবার রাজ্যে আসতে পারেন রাজনাথ সিং এবং যোগী আদিত্যনাথ। এদিকে, ৭ ফেব্রুয়ারি রাজ্যে আসছেন নরেন্দ্র মোদী। হলদিয়াতে প্রধানমন্ত্রী ভোটের প্রচার করবেন বলে জানা গিয়েছে।