বামেদের ব্রিগেডে বিজেপি তথা মোদীকে তীব্র আক্রমণ ছত্রিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রীর। রবিবার বেলা বাড়তেই জমে উঠেছে বামেদের ব্রিগেড। বিশেষ করে জোটের কারনেই যে যার প্রধান প্রতিপক্ষকে নিশানা করছেন। সূর্যকান্ত-মনোজ-আব্বাস প্রায় প্রত্যকেই মমতাকে নিশান করেন এদিন। তবে বক্তব্যের শুরু থেকেই নেতাজি ইস্যু, পরিবহণ ইস্যু তুলে মোদী সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন ছত্রিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল।

আরও পড়ুন, সেলিমের বক্তব্যেও এল 'ভাইপো', ব্রিগেডের জনসভা থেকেই রাজ্যে চাকরির প্রতিশ্রুতি বাম নেতার  

এদিন ছত্রিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন,' বাংলা হল সেই মাটি যেখানে স্বাধীনতার সংগ্রাম হয়েছে। এই সেই জায়গা যেখানে বড় বড় বিজ্ঞানী তথা শিল্পীরা জন্ম নিয়েছেন। তাই আমি বাংলাকে দুই হাত জোড় করে প্রণাম জানাই। এদিন নেতাজি ইস্যুতে মোদীকে নিশানা করে ভূপেশ বাঘেল বলেছেন, মোদী পরাক্রম দিবস পালন করেছেন। বাংলা সফরে এসে নেতাজির জন্মদিন পালন করেছেন। কিন্তু আমি মোদীজিকে বলব, 'ইতিহাসের পাতা উল্টে দেখুন। যেই সময় নেতাজি আজাদহীন ফৌজ তৈরি করেছিলেন, ওই সময় তোমাদের সভারকর, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ইংরেজদের ফৌজে সেনা ভর্তি করানোর কাজ করছিলেন। তোমরা কখনই নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর উত্তরাধিকারী হতে পারে না। নেতাজির উত্তরাধিকারী এখানে যারা উপস্থিত আছেন তাঁরা সকলে বলে ব্রিগেডের দিকে ইঙ্গিত করেন বাঘেল। এবং বলেন,' আমরা সকলেই নেতাজির উত্তরাধিকারী।'

আরও পড়ুন, 'রাজ্যে গণতন্ত্রের হত্যা হচ্ছে', ব্রিগেডে মমতাকে নিশানা সূর্যকান্ত-মনোজের 

 

এরপরে বাঘেল বলেন, নেতাজি সাম্প্রদায়িক হিংসার ইতি টেনে সম্পৃতি আনতে চেয়েছিলেন। এরপরে তিনি বালগঙ্গাধর তিলকের প্রসঙ্গও তুলে আনেন। বলেন বাল গঙ্গাধর তিলক বলেছেন, হিন্দু-মুসলিমকে এক করে দাও, তাহলেই ব্রিটিশ রাজকে সরানো যাবে। পবিত্র বাংলাতেই সেই স্বাধীনতা সংগ্রাম হয়েছে বলে একাধিকবার উল্লেখ করেন তিনি। তবে পাশাপাশি স্বাধীনতার প্রসঙ্গের পাশাপাশি  পরিবহণ ইস্যু তুলে মোদী সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন ছত্রিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল। এদিন তিনি বলেন, মোদী আগে বলেছিল দেশের কোনও কিছু বিক্রি হতে দেবে না। এদিকে এখন রেল-বিমান সবই প্রায় বিক্রি হয়ে গিয়েছে। এগুলি এনেছিল তবে কারা, প্রশ্ন তোলেন বাঘেল। ভোটের প্রাক্কালে এদিন বামেদের ব্রিগেডে পরশপাথর ছিলেন বাঘেল।