উত্তরবঙ্গ সফরে এসেই অমিত শাহের কথায় বেজায় ক্ষুব্ধ বললেন তৃণমূল সুপ্রিমো। যদিও শুধু বিজেপিকে তোপ দেগেই থেমে থাকেননি, এদিন এদিন আবার কোচবিহার থেকে ওয়াইসিকেও তোপ দেগেছেন মমতা।

আরও পড়ুন, 'EVM-র পদ্ম স্টিকার বদলে ঘাসফুলের প্রতীক', মমতার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ শুভেন্দুর  


 উল্লেখ্যে, একইদিনে উত্তরবঙ্গ সফরে এসেছেন অমিত শাহও। এদিন আবার অমিত শাহ, মমতাকে নিশানা করে বলেছেন,' দুই দফায় ৬০ আসনের মধ্যে ৫০-এর বেশি আসন জিতে গিয়েছে বিজেপি। কাল এটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, নন্দীগ্রামে দিদি হারছে।' এদিকে অমিত শাহ শীতলকুচিতে সভা শেষ হতেই উত্তরবঙ্গ সফরে এসে মমতা বললেন, 'ফাঁকা আওয়াজ দিচ্ছে বিজেপি-আমি নন্দীগ্রামে ভালোভাবেই জিতব। কিন্তু আমি একা জিতলে চলবে না। বাকী তৃণমূল প্রার্থীদেরও জিততে হবে' বলেন এদিন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তৃণমূল সুপ্রিমো আরও বলেছেন, ভোটের ভয়ে ওরা সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করেছে। ফের আরও একবার কমিশনকেও নিশানা করেন মমতা। তিনি বলেছেন, অমিত শাহের নির্দেশেই চলছে নির্বাচন কমিশন। যদিও শুধু বিজেপিকে তোপ দেগেই থেমে থাকেননি, এদিন এদিন আবার কোচবিহার থেকে ওয়াইসিকেও তোপ দেগেছেন মমতা।
 

 

 

এদিকে তৃণমূলের অফিশিয়াল পেজ থেকেও বিজেপিকে নিশানা করা হয়েছে। টুইট বার্তায় লেখা, দিদি নন্দীগ্রাম থেকেই জিতছেনই। তাই অন্য কোনও আসন থেকে তাঁর লড়াইয়ের প্রশ্নই ওঠে না। শুধু এখানেই শেষ নয়, মোদীর উদ্দেশ্য সেখানে তৃণমূলের তরফে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, বাংলার মানুষকে বিভ্রান্ত করা বন্ধ করুন। আপনার মিথ্যাচার প্রকাশ্যে এসে পড়েছে।  ২০২৪ এর জন্য নিরাপদ আসন খুঁজে নিন। বারণসীতে আপনি কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে পড়বেন।'

আরও পড়ুন, '১০ বছর কাজ করলে এই দিন দেখতে হতো না', মমতার ভাগ্য নির্ধারণের দিনেই জয়নগরে তোপ মোদীর