দল ও পদ একইসঙ্গে দুই ছাড়লেন দীনেশ ত্রিবেদী। আচমকাই রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল সাংসদ। এদিন রাজ্যসভার সভাকক্ষে উঠে দাঁড়িয়ে একথা ঘোষণা করেন তিনি। তবে কি আরও এক নয়া সংযোজন, দলবদল হতে চলেছে কি গেরুয়া শিবিরে, প্রশ্ন উসকে সরগরম রাজ্য-রাজনীতি।

আরও পড়ুন, 'এবার দর্শকের ভূমিকাতেই থাকতে হবে মমতাকে', দীনেশের ইস্তফা দিতেই তোপ দিলীপ-কৈলাসের 

এদিন  দীনেশ ত্রিবেদী জানিয়েছেন, তৃণমূলকে ধন্যবাদ। চুপ করে থাকতে থাকতে আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে। আমি আর চোখে দেখতে পারছি না। ওদিকে অত্যাচার চলছে, কিছু করতে পারছি না। বাংলায় গিয়ে আমি মানুষের সঙ্গে কথা বলতে চাই।' তিনি এরপরে বলেন, আমার মন বলছে, বিবেকানন্দের বাণী শুনতে। ওঠো -জাগো -লক্ষ্যে না পৌছানো পর্যন্ত থেমে থেকো না। আমার মন বলছে এখানে চুপ করে বসে বসে দেখার থেকে ইস্তফা দাও।'

 

 

আরও পড়ুন, কয়লা পাচার কাণ্ডে রাজ্যের অনুমতি ছাড়াই তল্লাশি চালাতে পারবে CBI, জানাল হাইকোর্ট 


প্রসঙ্গত, হেভিওয়েট প্রসঙ্গে মুকুল রায় দিয়ে শুরু হলেও শুভেন্দু অধিকারী দল ছাড়তেই যে তৃণমূলের বড় ভাঙন শুরু হয়েছে, এনিয়ে এখনও সম মত রাজনৈতিক মহলের। শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগের পরেই রাতারাতি দলে দলে তৃণমূল ছাড়ার হিড়িক ওঠে। সদলবলে গিয়ে বিজেপিতে নাম লেখান সকলে। এদিকে দোরগড়ায় ভোট। নির্বাচনের আগে শেষ মুহূর্তে দীনেশ ত্রিবেদী যদি বিজেপিতে যোগদান করেন, তাহলে ভরাডুবির আরও কাছে গিয়ে পৌছবে ঘাসফুল শিবির, গুঞ্জন রাজনৈতিক মহলে।