পশ্চিমবঙ্গে ভোট-পরবর্তী হিংসা নিয়ে অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ চলছেই। তারমধ্যেই শুক্রবার এই হিংসার জেরে ঘরছাড়া হওয়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে, তদন্তের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এই তদন্ত করবে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। একই দিনে এর আগে উচ্চ আদালত নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর জয়কে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা নির্বাচনী আবেদনের ভিত্তিতে হওয়া মামলার শুনানি পিছিয়ে দিয়েছে আদালত। তবে সেই মামলার বিচারককে ঘিরে প্রশ্ন উঠেছে।  

নন্দীগ্রামে ১,৯৫৬ ভোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে জয়ী হয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী, এমনটাই ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। বৃহস্পকিবার, সেই ফলাফলকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। এদিন, হাইকোর্টের বিচারপতি বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রের এজলাসে মামলাটি উঠলে, তিনি ২৪ জুন পর্যন্ত শুনানি মুলতুবি রাখেন। এরপরই বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রের নিরপেক্ষতা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

মহুয়া মৈত্র এদিন পাশাপাশি দুটি ছবি টুইট করেন। একটি ছবি এদিন কলকাতা হাইকোর্টে, বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রের কর্মসূচির তালিকা। সেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনটি মামলা, যেগুলিতে ভারতীয় জনতা পার্টি এক পক্ষ, সেই মামলাগুলি বিচারক কৌশিক চন্দ্রের এজলাসেই তোলা হচ্ছে। তারমধ্যে রয়েছে শুভেন্দু অধিকারীর জয়কে চ্যালেঞ্জ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দায়ের করা মামলা। অপর ছবিতে বঙ্গ বিজেপির আইন ও আইন বিষয়ক শাখার এক অনুষ্ঠানে মঞ্চে দেখা যাচ্ছে বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রকে। সেই মঞ্চে বক্তব্য রাখছেন দিলীপ ঘোষ।

এই দুটি ছবি পোস্ট করে ক্য়াপশনে তৃণমূল সাংসদ লিখেছেন, 'মাইলর্ড- আপনার বিবেক জাগ্রত হোক অথবা কিছু রাখ ঢাক রাখুন। মমতাদির নন্দীগ্রামের আবেদন উপস্থাপিত করা হয়েছে   বিজেপির আইনজীবী সেলের সদস্য ও এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিজেপির হয়ে সওয়াল করা বিচারপতি কৌশিক চন্দ্রের সামনে। আমাদের বিচার বিভাগকে বাঁচান!'