২৯৩ আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা মমতার। এবারের ভোটে ৫০ জন মহিলা প্রার্থী থাকবে। নন্দীগ্রাম থেকে ভোটে লড়বেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।তাই এবার 'দিদি'-র পাড়ায়- ভবানীপুরে তাঁর ছেড়ে দেওয়া আসনে দাঁড়াচ্ছেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। পাহাড়ের তিনটি আসনে লড়বে না তৃণমূল কংগ্রেস। বাকি ৩ আসন ছাড়া হবে বন্ধুদের।

আরও পড়ুন, আজই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে বামেরাও, তরুণ প্রজন্মের ওপর ভরসা রাখতে পারে দল  

 

 

 

 

আরও পড়ুন, 'ভোট লুটে তৃণমূলের বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে সুদীপ জৈন', বিস্ফোরক অধীর 

 

শুক্রবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, তাঁর দল ৫০টি আসনে মহিলা প্রার্থী দিয়েছে। ৪২ আসনে মুসলিম প্রার্থী দিয়েছে। উত্তরবঙ্গে ৩ টি আসনে লড়াই করবে না তৃণমূল কংগ্রেস। ৩ টি আসন ছেড়ে দেওয়া হবে 'বন্ধু' অর্থাৎ জোটসঙ্গীদের জন্য। গতবছর গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাকে এই আসন ৩ দেওয়া হয়েছিল । কিন্তু বর্তমানে পাহাড়ে ভাগ হয়ে গেছে মোর্চা। তবে তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থন করার কথা জানিয়েছেন বিমল গুরুং রোশন গিরিরা। এদিকে, বিমল গুরুং জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যাতে আরও একবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে পারেন তার জন্য সব রকম সাহায্য করা হবে। 

আরও পড়ুন, 'নন্দীগ্রাম থেকে আমিই লড়ব', শুভেন্দুর চ্যালেঞ্জের কথা মনে পড়েই কি গর্জে উঠলেন মমতা 

 

৮০ ঊর্ধ্ব বয়সী বিধায়কদের কোভিড পরিস্থিতি বলে টিকিট দেবে না তৃণমূল। অমিত মিত্র, পূর্ণেন্দুবসু, সোনালী চক্রবর্তীর মতো যাঁদের বিধায়কের টিকিট দেওয়া যাচ্ছে না, তাঁদের বিধান পরিষদ গড়ে তার সদস্য করা হবে।  শুক্রবার প্রার্থী ঘোষণার সময় এমনটাই জানালেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। পাশপাশি শান্তিপূর্ণ ভোটের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। বহিরাগতদের বাংলায় কোনও স্থান হবে না বলেও জানিয়েছেন মমতা।