'আহত বাঘ অনেক বেশি ভয়ঙ্কর', রবিবার হুইলচেয়ারে বসেই তৃণমূলের মিছিলকে নের্তৃত্ব দিয়ে এমনটাই বার্তা দিলেন মমতা। মমতার বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের হুইল চেয়ারের পাশেই মিছিলে এগোলেন অভিষেকও। যদিও এদিন বেশি কথা না বাড়িয়েই পায়ের তীব্র যন্ত্রনা নিয়েই মিছিল শেষে তৃণমূল সুপ্রিমো রওনা দিলেন দুর্গাপুরের উদ্দেশ্য়ে। 
 

আরও পড়ুন, নজরে অধীর গড়, মুর্শিদাবাদে আসন দখলে পিকের আইপ্যাক টিমের রুদ্ধদ্বার বৈঠক 

 

 

এদিন মিছিল চলাকালীনই মমতা জানিয়েছেন, 'পায়ে প্রবল যন্ত্রনা অনুভব করছি।' তবে মিছিল শেষে ক্লান্ত শরীরে দৃঢ় কন্ঠে বললেন, 'শারীরিক যন্ত্রনার থেকে গণতন্ত্রের যন্ত্রনা অনেক বেশি।তিনি এদিন আরও বললেন যে, চিকিৎসক তাঁকে ১৫ দিনের বেড রেস্টে থাকতে বলেছে। কিন্তু দোরগড়ায় যে ভোট, তিনি শুয়ে থাকবেন কী করে। মানুষের জন্য জন্য যন্ত্রনা অনুভব করেছেন বলে জানালেন মমতা। পাশপাশি এদিন আবার তিনি নন্দীগ্রামে যে নিছক দুর্ঘটনা হয়নি, তার উপর পরিকল্পনা মাফিক হামলাই চালানো হয়েছে, তা নানা ভাবে কথার মধয দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন মমতা। আর সেই সব অশুভ শক্তির বিনাশের ডাক দিলেন এদিন মমতা।  উল্লেখ্য, যাবতীয় ঘটনা খতিয়ে দেখার পর, পরিকল্পিত হামলা নয়, নন্দীগ্রামে দুর্ঘটনাতেই আহত মুখ্যমন্ত্রী বলে এই রিপোর্ট কমিশনে পাঠিয়েছে ওই ২ পর্যবেক্ষক। স্বভাবতই এমন পরিস্থিতিতে সরগরম রাজ-রাজনীতি।

আরও পড়ুন, ভোট ঘোষণার পর আজ প্রথম রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ, দেখুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ২ দিনের সফরসূচি 

 

 


  এদিন গান্ধীমূতি থেকে হাজরা অবধি তৃণমূল কংগ্রেসের মিছিল হয়েছে। প্রথমে ঠিক ছিল মিছিলে নের্তৃত্ব দেবেন অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। পরবর্তী সময়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় মিছিলের শেষে হাজরায় থাকবেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। শেষমেষ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে গোটা মিছিলেই থাকবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। প্রায় ৫ কিমি রাস্তা মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় হুইল চেয়ারে বসেই সফর করলেন এদিন মমতা। যদিও এদিন বেশি কথা না বাড়িয়েই পায়ের তীব্র যন্ত্রনা নিয়েই মিছিল শেষে তৃণমূল সুপ্রিমো রওনা দিলেন দুর্গাপুরের উদ্দেশ্য়ে।