'সিঙ্গুরবাসীর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন দিদি ', হরিপালে এসে এদিন মমতাকে ফের নিশানা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই দিনে তারকেশ্বরে সভা করলেন মোদী-মমতা। সামনেই তৃতীয় দফার ভোট, আর সেটাকে সামনে রেখেই তৃণমূল সুপ্রিমোকে তোপ দেগেছেন মোদী।

আরও পড়ুন, 'নেত্রী নন্দীগ্রামে হারছেন', মমতার ঘনিষ্ঠমহল থেকেই দ্বিতীয় আসনে লড়ার খবর পেয়েছিলেন নাড্ডা 

 

 


এদিন মোদী বলেছেন, 'সিঙ্গুরবাসীর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন দিদি। এখানে কোনও শিল্প নেই, কোনও কর্মসংস্থান নেই। রাজ্য়ে পুরোনো শিল্প বন্ধ হয়ে গেছে।  গড়ে ওঠেনি কোনও নতুন শিল্পও। তৃণমূল, বাংলার মানুষের কাছে বিপদ।' এর পর তিনি কৃষি প্রসঙ্গে বলেছেন,' হুগলির আলু প্রচুর পরিমাণে নষ্ট হয়। শুধুমাত্র এই জন্যই যে দিদি এখানে কোনও হিমঘর তৈরি করেননি। এখন বিশ্বাসঘাতককে জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত  বাংলার মানুষ। তৃণমূলের লোকেরাই এখন বলছে যে, নন্দীগ্রাম থেকে লড়বার সিদ্ধান্ত তাঁর ভুল ছিল। তবে এখানেই শেষ নয়, তিনি এদিন আরও বলেছেন,'এবার শোনা যাচ্ছে দিদি বারাণসী থেকে লড়বেন। তার মানে দিদি বাংলায় পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন।' উল্লেখ্য, সম্প্রতি এই ইস্যুতেই সামনে তৃণমূলের টুইটার অফিসিয়াল পেজ থেকে বিজেপি তথা মোদীর উদ্দেশ্য একটা বার্তা দিয়ে বলা হয়েছিল,'বাংলার মানুষকে বিভ্রান্ত করা বন্ধ করুন। আপনার মিথ্যাচার প্রকাশ্যে এসে পড়েছে।  ২০২৪ এর জন্য নিরাপদ আসন খুঁজে নিন। বারণসীতে আপনি কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যে পড়বেন।' এদিন তারই পাল্টা জবাব দিলেন মোদী বলে চাপান উতোর রাজনৈতিক মহলে।

 

 

আরও পড়ুন, 'দেবশ্রী রায়কে নিয়ে ক্ষোভ ছিল-তাই প্রার্থী করিনি', বিস্ফোরক মমতা 

 

 

অপরদিকে, হরিপালের সভা শেষ করে এদিন সোনারপুরের জনসভায় আসেন মোদী। তিনি এদিন সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্য রাস্তায় জমা জল তথা পানীয় জলের ইস্যুতে বলেন, 'দিদি যে কী উন্নয়ন করেছে, সেটা এখানের রাস্তা দেখলেই বোঝা যাচ্ছে।  এখানকার পানীয় জলের সমস্যা এবং রাস্তায় জমা জলের সমস্যার ভোগান্তির মুখে পড়ছে মানুষ।'