'আপনারা কেমন আছেন'-কুশল বিনিময় করে সর্বমঙ্গলদেবীকে প্রণাম জানিয়ে এদিন বক্তব্য শুরু করলেন মোদী। '৭০ বছর আপনারা অনেককে সুযোগ দিয়েছেন-এবার  ৫ বছর BJPকে দিন', এদিন খড়গপরে এসে অনুরোধ মোদীর। তিনি 'মিনি ভারত- খড়গপুর' বলেও রেলের শহরকে আখ্যা দিলেন। ছোট শিল্প করার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন এদিন মোদী। 'এই কাটমানির সরকারের বদল দরকার' এদিন দিলীপ ঘোষের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে মমতাকে ফের নিশানা করতেও ভূললেন না মোদী। 

আরও দেখুন, 'দিদিকে গণতন্ত্র ধ্বংস করতে দেওয়া যাবে না', মোদীর কথায় ঢেউ খেলল খড়গপুরের জনসমুদ্রে, দেখুন ছবি 

 

 

মোদী এদিন বলেছেন,' দিদির দল নির্মমতার পাঠশালা সিলেবাস হচ্ছে তোলাবাজি, কাটমানি, সিন্ডিকেট।বাংলাতেও ৫০-৫৫ বছর ধরে উন্নতি হোয়াটসঅ্যাপের মত আটকে রয়েছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে দিদি আপনাদের অধিকার  ধ্বংস করেছেন। সেটা মানুষ দেখেছেন। বাংলার মানুষ এখন ঠিক করেছেন দিদিকে আর গণতন্ত্রের মর্যাদা হত্যা করতে দেবেন না।বাংলার মানুষকে আশ্বস্ত করছি যে, দিদিকে গণতন্ত্র ধ্বংস করতে দেওয়া যাবে না। পুলিশ-প্রশাসনকেও মনে রাখতে হবে সংবিধান ও গণতন্ত্র থেকে বড় কিছু নয়।' তিনি আরও বলেন, 'জন সমুদ্রের এই গর্জন আমাদের এগিয়ে চলার প্রেরণা। সোনার বাংলা গড়ার উদ্যম জোগায়। বাংলায় এইবার বিজেপি সরকার-একবার আশীর্বাদ করুন আপনাদের কল্যাণের জন্য জীবন উৎসর্গ করে দেব' বলে প্রতিশ্রুতু দেন প্রধানমন্ত্রী।

আরও পড়ুন, 'নির্মমতার দল' থেকে 'ভাইপো উইন্ডো', খড়গপুর থেকে তৃণমূল সরকারকে তুলোধনা মোদীর  

 

 

২০ মার্চ  প্রধানমন্ত্রীর সভায় জনসমুদ্র খড়গপুরে। ওদিকে   ২১ মার্চ বাঁকুড়া, ২৪ মার্চ কাঁথিতে আসবেন মোদী। শনিবার পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামের ১৯ জন বিজেপি প্রার্থীর প্রচারে এবার ফের রেল শহরের বিএনআর ময়দানেই সভা করতে এলেন প্রধানমন্ত্রী। মোদীর সভা ঘিরে রেল শহরে ময়াদনের মাঝে প্রায় ৯০০ বর্গফুটের মঞ্চ করা হয়েছে।  শহরের ট্রাফিক ময়দানের হ্যালিপ্যাডে নামবে মোদী কপ্টার। সঙ্গে থাকবে আরও ৩ কপ্টার। গোলবাজারের রাস্তা ধরে বেলা ১১টা নাগাদ বিনএনআর ময়দানের সভামঞ্চে পৌছবেন মোদী। সভামঞ্চের পিছনে প্রধানমন্ত্রীর বসার জন্য ঘর এবং শৌচাগার করা হয়েছে। রয়েছে চা, বিস্কুট এবং ডাবের ব্যবস্থাও।