বিজেপিতে যোগ দিলেন সৌম্যেন্দু অধিকারী। দাদা শুভেন্দুর হাত ধরেই কাঁথিতে বিজেপিতে যোগদান করলেন সদ্য তৃণমূল থেকে অপসারিত সৌম্যেন্দু অধিকারী। কাঁথি সাতসকাল থেকেই ছিল মানুষের ভীড়। বিজেপিতে যোগ দিতেই শুভেচ্ছার ঢেউ সারা বাংলা জুড়ে। 

 উল্লেখ্য, কিছু দিন আগেই  কাঁথির পুর প্রশাসকের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছিল রাজ্য সরকার। প্রকাশ্য়েই এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারীর অপর ভাই, তমলুকের সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী। মঙ্গলবার খড়দহের সভা থেকে অভিষেকের কটাক্ষের পাল্টা জবাবে বলেন,' তোমার বাড়িতে ঢুকেও পদ্ম ফোঁটাব।' এর পরপরেই প্রশাসকের পদ থেকে সরানো হয় সৌম্যেন্দুকে। যদিও অপসরণের কারণ জানতে চেয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছেন সৌম্যেন্দু অধিকারী। তবে এই মুহূর্তে বিজেপিতে যোগ দিয়ে বাংলায় ঐতিহাসিক মুহূর্তে সৌম্য়েন্দু।

 
বিজেপিতে যোগ দিয়ে সৌম্য়েন্দু বিশেষ কিছু না বললেও তৃণমূলকে একহাত নেন শুভেন্দু। উল্লেখ্য, বর্ষবরণে শুভেন্দুর জোড়া সভা ছিল বাংলায়। পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম এবং কাঁথিতে জোড়া সভা করেন শুভেন্দু। শুক্রবার সকাল  ১১ টা নাগাত তাঁর প্রথম সভা ছিল নন্দীগ্রামের সোনাচূড়ায়। সেখান থেকে তিনি বলেন, সোনাচুঁড়ার সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, লালা, এনামুল, বিনয় মিশ্রের পর আর একটা চৌকাঠ। তারপরই পালা তোলাবাজ ভাইপোর। অর্থাৎ নাম না করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে হুঁশিয়ারী দিয়ে রাখলেন শুভেন্দু অধিকারী।