আগামী পাঁচ বছরও কি বঙ্গ বিধানসভা সাক্ষী নন্দীগ্রামের হাড্ডাহাড্ডি ভোট যুদ্ধের? এই প্রশ্নই তুলে দিল শুভেন্দু অধিকারীর বিরোধী নেতা নির্বাচন। বিজেপির নব নির্বাচিত বিধায়করা শুভেন্দু অধিকারীকে বিধানসভায় তাঁদের নেতা নির্বাচন করেছেন। আর সেই সূত্র ধরেই তিনি বঙ্গ বিধানসভায় তিনি বিরোধী নেতা হিসেবে থাকতে চলেছেন আগামী পাঁচ বছর। 

বিধানসভা নির্বাচনে ৭৭টি আসনে জয়ী হয়েছে বিজেপি। এবার বিধানসভায় বিজেপি একমাত্র বিরোধী রাজনৈতিক দল হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করবে। বিজেপি ছাড়া অন্য কোনও রাজনৈতিক দল একটিও আসন জিততে পারেনি। সোমবার রাজভবনে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ গ্রহণ করছেন, তখনই বিজেপির বিধায়করা বিধানসভায় তাঁদের নেতা হিসেবে বেছে নিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারীকে। বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ভূপেন্জ্র যাদবের উপস্থিতিতে সর্বোসম্মতভাবে শুভেন্দু বিজেপির বিধায়কদলের নেতা নির্বাচিত করা হয়। 

বিধানসভা নির্বাচনের আগেই শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপি শিবিরে চলে যান। তারপরই তিনি নন্দীগ্রাম থেকে পদ্ম প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। নন্দীগ্রাম আসনে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে প্রায় হারিয়েদেন। দলীয় সূত্রের খবর সেই জয়ের পুরষ্কার হিসেবেই শুভেন্দু অধিকারে বিধানসভার বিরোধী নেতা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। সূত্রের খবর মুকুল রায়ের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পরই শুভেন্দু অধিকারীকে নেতা হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে।, সূত্রের খবর মুকুল রায়ই শুভেন্দু অধিকারির নাম প্রস্তাব করেছিলেন।