মমতার মনোনয়নের দিনে একঝাঁক তৃণমূল নেতা-কর্মী-বিধায়ক ঘাসফুল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখালেন।  বিজেপি-তে গেলেন তৃণমূল বিধায়ক বাচ্চু হাঁসদা, তৃণমূল সাংসদ প্রতিমা মন্ডলের বোন, তেহট্টের বিধায়ক গৌরীশঙ্কর দত্ত, পাণিহাটি পুরসভার প্রশাসকমন্ডলীর ২ সদস্য, কুলতলির তৃণমূল ব্লক সভাপতি। 

আরও পড়ুন, ISF নয়, নন্দীগ্রামে মমতার বিরুদ্ধে প্রার্থী দিতে চলেছে সিপিএম 


এদিন বিজেপিতে যোগ দিলেন একঝাক তারকাও। তালিকা দেখে নাম জানালেন রাজীব বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। আর বিজেপি যোগের পর রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে প্রণাম করে ঘাসফুল শিবির ছেড়ে এসে তৃণমূল উৎখাত করার পরিকল্পনা নিলেন। এদিন অভিনেতা বনি সেনগুপ্ত, হিরণ, মিঠুন সহ একাধিক অভিনেতা বিজেপি যোগ দিলেন।  এদিন ৪০ জন স্টার ক্য়াইম্পেনারের নাম প্রকাশ করেছে বিজেপি।দ্বিতীয় দফায় পয়লা এপ্রিল ভোটগ্রহণ খড়গপুর সদর আসনে। শুক্রবার মনোনয়ন জমা  দেওয়ার শেষ দিন। তার আগে একেবারে শেষবেলায় ওই আসনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করল বিজেপি। প্রার্থী হচ্ছেন অভিনেতা হিরণ চট্টোপাধ্য়ায়। এই কেন্দ্র থেকেই প্রার্থী হওয়ার সম্ভবনা ছিল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। কিন্তু সেই জল্পনায় জল ঢেলে অভিনেতা হিরণ চট্টোপাধ্য়ায় প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করল বিজেপি।

 

আরও পড়ুন, কৌশিক রায়কে প্রার্থী করতে পারে BJP, তবে অভিনেতার বহিরাগত ইস্য়ুতে দলের অন্দরে ক্ষোভ বহরমপুরে 

 হিরণ জানিয়েছেন, এত বছর ধরে ঘাসফুল শিবিরে থাকলেও তৃণমূল শুধুই তাঁকে প্রচারের জন্য ব্যবহার করে গিয়েছে। মানুষের কাজ করার সুযোগ তাঁকে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ জানিয়েছেন। এদিকে ইতিমধ্যেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার পরেও তাঁর আসেনি। একটা সময় তিনি তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন। শুরুর দিন গুলি থেকে কাজ করে গিয়েও তালিকায় নাম না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, 'একুশ বছর ধরে কাজ করে সৌজন্যটুকু দেখায়নি তৃণমূল।'