বুধবার অবশেষে বহু প্রতীক্ষার পর ইস্তাহার প্রকাশ করল তৃণমূল। বুধবার বিকেলে জঙ্গলমহল থেকে ফিরে এসে নিজের হাতেই ইস্তাহার প্রকাশ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। এদিন ইস্তাহার প্রকাশের শুরুতেই সকলকে শুভেচ্ছা জানালেন মমতা। ৪০ শতাংশ দারিদ্র দূরীকরণ,পরিযায়ী শ্রমিক পরিবারের কর্ম সংস্থান,ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বিধবা ভাতা দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন মমতা।

আরও পড়ুন, 'আমাদেরকে-সিপিএমকে ভোটটা দিন',কী ইস্যুতে 'গুলি মারা'র অভিযোগ তুলেও বামপন্থীদের বন্ধু বানালেন মমতা 


অপরদিকে,  '১০ লক্ষ এমএসএমই করব' বলে জানালেন এদিন মমতা। এর পাশপাশি জঙ্গলমহল শিল্পনগরীতে ৬৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প। বাংলা আবাস যোজনার মাধ্যমে ২৫ লক্ষ অথিরিক্ত বাড়ি তৈরি, এই সুবিধা মূলত তপশিলি জাতি ও উপজাতিদের দেওয়া হবে। মাহিশ্য, সাহাদের ওবিসি টেটাস পরীক্ষার জন্য স্পেশাল টাস্ক ফোর্স গঠন করা হবে। কণ্যাশ্রী, রূপশ্রী ও স্বাস্থ্যসাথী চলবে। এবং স্বাস্থ্যসাথীকে আরও সরলীকরণ করা হবে। পাশাপাশি তিনি জানালেন, রাজ্য়ে মাথাপিছু গড় আয় দ্বিগুন বেড়েছে। প্রতিবছর চাকরিতে নিয়োগ বেকারত্ব অর্ধেক হবে বাংলায়।ছাত্র-যুবদের জন্য সুলভ ক্রেডিট কার্ডের কথাও ঘোষণা করলেন মমতা। ১০ লক্ষ টাকা ঋণ পাবেন, মাত্র ৪ শতাংশ সুদ। জামিনদার হিসেবে কাউকে থাকতে হবে না। মা-বাবার উপর নির্ভর করতে হবে না', বলে জানালেন মমতা।
 

আরও পড়ুন, মমতার বাড়ির পাশেই পুরসভার জল খেয়ে শিশু সহ মৃত ২, 'এটা লিভার ফেইলিওর কেস' বললেন ফিরহাদ  


উল্লেখ্য,  প্রথমে গত সপ্তাহের মঙ্গলবার ইস্তাহার প্রকাশ করবে বলে ঠিক করে পরে তা পিছিয়ে বৃহস্পতিবার নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু নন্দীগ্রামে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় আহত হওয়ার পর তা  ১৪ মার্চ নন্দীগ্রাম দিবসে স্থির করা হয়। পরে এই তারিখও পিছিয়ে ১৭ মার্চ বুধবারে ইস্তাহার প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল।