মাস তিনেক ধরেই চলছিল জল্পনা। নন্দীগ্রামের জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, 'যদি এখান থেকে দাঁড়াই, কেমন হয়?' সেই থেকেই এই কেন্দ্রে মমতা বনাম শুভেন্দু - হেভিওয়েট লড়াই-এর অপেক্ষা করছিলেন সকলে। শুক্রবারই নন্দীগ্রাম থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার বিষয়টি পাকা হল। শনিবার, নয়াদিল্লি থেকে প্রকাশ করা হল বিজেপির প্রার্থী তালিকা। আর তাতেই এই জমজমাট ভোট-যুদ্ধের বিষয়টিতে সিলমোহর পড়ে গেল।

নন্দীগ্রাম থেকেই দাঁড়াতে চান, বলে শুক্রবারই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে জানিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন প্রথম দুই দফা ভোটের প্রার্থী ঘোষণা করতে গিয়ে নন্দীগ্রাম আসনে তাঁর নামই ঘোষণা করল গেরুয়া শিবির। তাই মমতা বন্দ্যোাধ্যায় আর তাঁর হাতে তৈরি নেতার মুখোমুখি জমজমাট লড়াই দেখতে চলেছে বাংলা।

এদিন প্রথম দুই দফা নির্বাচনের ৬০টি আসনের মধ্যে ৫৯টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে বিজেপি। বাঘমুণ্ডি আসনটি তারা ছেড়েছে জোটসঙ্গী এজেএসইউ বা আজসু অর্থাৎ অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়ন-কে। রাজ্যসভা নির্বাচনের সময়ও তারা বাংলায় বিজেপি প্রার্থীকে সমর্থন করেছিল বলে জানানো হয়েছে গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে।

খড়গপুর সদর কেন্দ্র থেকে ফের বিজেপি রাজ্য সভাপতিকে প্রার্থী করা হবে  কি না, তাই নিয়ে গত দুইদিন ধরে নয়াদিল্লিতে দীর্ঘ সময় ব্যয় করা হয়েছে। কৈলীস বিজয়বর্গীয় দিলীপ ঘোষকে প্রার্থী করা হবে বলেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত অবশ্য খড়গপুর থেকে প্রার্থী করা হয়েছে তপন ভুইয়াঁকে। অন্যদিকে, ডেবরা আসনে প্রার্থী করা হয়েছে প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষকে। আর ময়না কেন্দ্র থেকে বিজেপি প্রার্থী হয়েছেন বাংলার প্রাক্তন ক্রিকেটার  অশোক দিন্দা।

 

এটি ব্রেকিং নিউজ, বিস্তারিত আসছে...