বাংলা পরিবর্তনের মঞ্চ তৈরি হয়েছে। হুগলির ডানলপের জনসভায় প্রথমেই এই দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সোমবার তিনি বলেন গোটা দেশের সঙ্গে পশ্চিমবাংলাতেও পরিকাঠামোর উন্নয়ন ও নতুন পরিকাঠামোর ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। আর সেই কারণে জোর দেওয়া হয়েছে রেলপথের ওপর। 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন বাংলার পরিকাঠামো উন্নয়মনের ইতিমধ্যেই প্রচুর টাকা বিনিয়োগ করা হচ্ছে। আর সেই কারণে ফ্রেইড করিডোরেরর সম্পূর্ণ সুবিধে পাচ্ছে বাংলা। আর তারফলে রাজ্যের কৃষিজীবি ও মৎসজীবিরা তাদের তৈরি ফসল ও মাছ বাংলা থেকে অনেক সহজেই মুম্বই সহ দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় পাঠিয়ে দিতে পাচ্ছেন। তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন,  খুব তাড়াতাড়ি শালিমার-মহারাষ্ট্র কিষাণরেল চালু হচ্ছে। কিষান রেলের ফলে সুবিধে পাবেন রাজ্যের ছোট কৃষকরা। 

তিনি আরও বলেন বর্তমানে বাংলাও উন্নয়ন চায়। আর সেই কারণে রাজ্যের উন্নয়নে গতি দিতেই নোয়াপাড়া থেকে  দক্ষিণেশ্বর মেট্রোর উদ্বোধন তাঁদের কাছে অন্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা , হাওড়া ও হুগলির মানুষ উপকৃত হবেন বলেও দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যের উন্নয়ন থমকে যাওয়ার জন্য রাজ্যের তৃণমূল সরকারকে নিশানা করেন। তিনি বলেন কেন্দ্রের স্বাস্থ্য ও জল প্রকল্পের সুবিধে রাজ্যের মানুষ পাচ্ছেন না। রাজ্যের উন্নয়ন প্রায় থমকে পয়েছে। অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় পিছিয়ে পড়ছে রাজ্য। কেন্দ্রীয় সরকার চালু করলনেও এখনও পর্যন্ত রাজ্যের সব মানুষ এই সুবিধে পাননি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।  এদিন প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মঞ্চে ছিলেন রাজ্য বিজেপির প্রথম সারির নেতারা। দীলিপ ঘোষ, লকেট চক্রবর্তী, শুভেন্দু আধিকারি রাজীব  বন্দ্যোপাধ্যায়ের মত নেতারা উপস্থিত ছিসেন।  আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের পরিবর্তন হবে বলেও দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।