মুর্শিদাবাদে সপরিবারে স্কুল শিক্ষকের নৃশংস হত্যাকাণ্ড নিয়ে এবার সরব হলেন অভিনেত্রী এবং পরিচালক অপর্ণা সেন। এই ঘটনার উল্লেখ করে টু্ইটারে মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন অপর্ণা। শুধু তাই নয়, নিহত স্কুল শিক্ষককে আরএসএস কর্মী বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। 

দশমীর দিন মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জে বাড়ির ভিতর থেকে এক স্কুল শিক্ষক, তাঁর অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী এবং আট বছরের ছেলের গলাকাটা দেহ উদ্ধার হয়। নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডের রহস্যভেদে এখনও ব্যর্থ পুলিশ। যদিও প্রাথমিক তদন্তের পরে ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির যোগ উড়িয়ে দিয়েছেন পুলিশ কর্তারা। কিন্তু অপরাধীর হদিশ বা খুনের কারণও এখনও খুঁজে পায়নি পুলিশ। 

পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে রাজনীতির যোগ উড়িয়ে দিলেও নিহত স্কুল শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পালকে তাঁদের কর্মী বলে দাবি করেছে আরএসএস। এর পর থেকেই হত্যাকাণ্ড নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়। বৃহস্পতিবার এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তার পাল্টা জবাব দেয় তৃণমূলও। 

আরও পড়ুন- আইনশৃঙ্খলা নিয়ে বিঁধলেন রাজ্যপাল, পাল্টা দিলেন পার্থ, দেখুন ভিডিও

জিয়াগঞ্জের হত্যাকাণ্ড নিয়ে টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কার্যত রাজধর্ম স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন অপর্ণা সেন। টুইটারে তিনি লিখেছেন, 'অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, সন্তান-সহ আরএসএস কর্মীকে হত্যা করা হল পশ্চিমবঙ্গে। এই ঘৃণ্য অপরাধের পিছনে যে কারণই থাকুক না কেন, এটা আমাদের কাছে লজ্জার। এই ঘটনায় দোষীদের যাকে যথাযথ বিচার হয়, মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী তা দয়া করে নিশ্চিত করুন। যাঁর যে রাজনৈতিক আনুগত্যই থাক না কেন, পশ্চিমবঙ্গের সব নাগরিকের দায়িত্বই আপনার। আপনি সবার মুখ্যমন্ত্রী।'

 

 

রামের নামে গণপিটুনির মতো ঘটনার প্রতিবাদ করে বিজেপি, আরএসএসের রোষের শিকার হয়েছেন অপর্ণা সেন। আবার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে চিকিৎসক বা প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জুগিয়েছেন তিনি। এবার মুর্শিদাবাদের ঘটনায় সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে এই ঘটনা নিয়ে রাজ্য প্রশাসনের উপরে চাপ আরও বাড়ালেন প্রবীণ এই অভিনেত্রী- পরিচালক।