রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে দিল্লি নিয়ে ভাবা উচিত সব রাজনৈতিক দলের।  যার যেটা অভিজ্ঞতা সেটা অমিত শাহ এবং কেজরিওয়ালের সাথে আলোচনা করা উচিত । যে পুলিশ অফিসার মারা গেল তার দেহ পাওয়া গেছে একটা নর্দমায়। তার সামনেই পাশেই তাহির হোসেনের বাড়ি। এবং তার ছাদ থেকে পেট্রোল বোমা পাওয়া যায়। আজ পুরুলিয়ায় একটি কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে পুরুলিয়ায় এই কথাগুলো বলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। 

মোদী ফ্যাসিস্ট, পিঙ্ক ফ্লয়েডের গিটারিস্টের মুখে সিএএ বিরোধী কবিতা

এছাড়াও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,আপনারা বিরোধী বিরোধী করেছেন দিল্লিতে যারা মারা গেছেন, তাদের কোনও বিরোধী হয় না। তাদের সবাইকে এক পক্ষে থাকা উচিত। বিরোধী রাজনীতি দেশকে সর্বনাশ করছে। দিল্লিতে যে ঘটনা ঘটেছে সেখানে কোনও বিরোধী দল  হতে পারে না। সব দলকে একসাথে বসে আলোচনা করতে হবে।সোনিয়া গান্ধী এতদিন কোথাও ছিলেন না। রাহুল গান্ধী বিদেশে কোথায় আছে কেও জানে না। হঠাৎ উধাও হবেন, দুটো কথা বলবেন।

জঙ্গলমহলের এই 'ফরেস্টম্য়ান' সারাটা জীবন রাত জেগে থাকতেন, 'জঙ্গলে আগুন লাগতো না তো'

সব রাজনৈতিক দলের উচিত দিল্লি কী করে শান্ত হবে, সে নিয়ে আলোচনায় বসা। তবে দিল্লির প্রসঙ্গ নিয়ে রাজ্য়ে মমতার সরকারকে তুলোধনা করতে ছাড়েননি  বাবুল। তিনি  বলেন, এর আগে রাজ্য়ে  তিনশো কোটি টাকার রেলের সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে তখন তো উনি আর্মি নামাতে বলেননি। কেজরিওয়াল চেয়েছে আর্মি নামানো হয়েছে। এ ছাড়াও দিল্লি পুলিশকে কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হিংসা থামাতে দেখামাত্রই গুলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দিল্লিতে।  এর আগে খাগড়াগড় কাণ্ড কালিয়াগঞ্জ কাণ্ড হয়েছে রাজ্য়ে, তখন তো দিদি চুপ ছিলেন।

অমিত শাহ ঢুকলেই কালো পতাকা, গো-ব্যাক স্লোগানের প্রস্তুতি নিচ্ছে সিপিএম

আজ পুরুলিয়ার ঝালদা ব্লকের ভাকুয়াডি গ্রামে যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। কিছুদিন আগে ওই গ্রামে হাতির হামলায় এক সবজি বিক্রেতার মৃত্যু হয়। ওই পরিবারকে ক্ষতি পূরণ দিতে যাওয়ার আগে আসানসোল থেকে পুরুলিয়া ঢুকেই সাংবাদিকদের এই কথাগুলি বলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্ৰী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়।