Asianet News BanglaAsianet News Bangla

By Election Result- 'নির্বাচনী ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব হচ্ছে', মহুয়া-র বিরুদ্ধে অভিযোগ BJP সাংসদের

বাংলার ৪টি বিধানসভা আসন- গোসাবা, শান্তিপুর, খড়দহ এবং দিনহাটা, চারটি কেন্দ্রেই শুরু হয়েছে ভোট গণনা। 'নির্বাচনী ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব হচ্ছে', ভোট গণনার সকালেই অভিযোগ আনলেন বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার।

BJP MP Jagannath Sarkar has leveled allegations against  Mahua Moitra since the counting began RTB
Author
Kolkata, First Published Nov 2, 2021, 8:48 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

'নির্বাচনী ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব হচ্ছে', ভোট গণনার সকালেই অভিযোগ আনলেন বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার (BJP MP Jagannath Sarkar)।  উল্লেখ্য, ৩০ অক্টোবার বাংলার ৪টি বিধানসভা আসন- গোসাবা, শান্তিপুর, খড়দহ এবং দিনহাটাতে  উপনির্বাচন  হয়েছে।  ইতিমধ্য়েই চারটি কেন্দ্রেই শুরু হয়েছে ভোট গণনা। আর গণনা শুরু হতেই কৃষ্ণ নগরের সাংসদের ( Mahua Moitra) বিরুদ্ধে নির্বাচনী বিধি ভঙ্গের অভিযোগ এনেছেন রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার (BJP MP Jagannath Sarkar)।

আরও পড়ুন, West Bengal ByPoll Results 2021 Live Updates- গোসাবা-দিনহাটায় ১ লক্ষের ও বেশি ভোটে এগিয়ে তৃণমূল  

 এদিন সকালে গণনা শুরু হতেই বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার অভিযোগ করেছেন, 'নির্বাচনী ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব হচ্ছে। এটা আমরা পরিষ্কার বলছি। কোনও  ভিআইপি ভিতরে যেতে পারছেন না। এদিকে আমরা শুনলাম কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মিত্র ভিতরে গিয়েছেন। দেখভালের দায়িত্বে যারা, তাঁদের পক্ষপাতিত্ব না থাকলে কীভাবে গেলেন। মহুয়া মৈত্রের ব্যক্তিগত দেহরক্ষী রয়েছে, নির্বাচন কমিশনের বিধি অনুযায়ী দেহরক্ষী থাকা জনপ্রতিনিধিরা গণণাকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারে না। তিনি গণনাকে প্রভাবিত করবেন। আমি কিন্তু ভিতরে ঢোকার চেষ্টার করিনি। আমার এক্তিয়ার নেই বলেই চেষ্টা করিনি।' যদিও রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকারের অভিযোগ ওড়াল তৃণমূল। রানাঘাটে শান্তিপুর বিধানসভা উপনির্বাচনের গণণাকেন্দ্রে মহুয়া মৈত্র-র প্রবেশের ইস্যুতে সাফ জানিয়েছে তৃণমূল, নির্বাচন কমিশনের দেওয়া এজেন্ট কার্ড নিয়েই গণণাকেন্দ্রে প্রবেশ করেছেন মহুয়া মৈত্র।

আরও Chhath Puja 2021- দূষণের জেরে এবারও রবীন্দ্র সরোবরে বন্ধ ছট পুজো, বিকল্পে শহরে আরও ১৭০ ঘাট

এই মাত্র পাওয়া খবরে, অভিযোগ উঠতে মহুয়া মৈত্রকে সতর্ক করেছে কমিশন। যদিও মহুয়া মৈত্র জানিয়েছেন, তিনি কোনও অন্যায় করেননি। তিনি বলেন নিয়ম অনুয়ায়ী সাংসদ, বিধায়ক সরকারি নিরাপত্তা রক্ষী নেন তবে তিনি কাউন্টিং এজেন্ট হতে পারবেন না। আমি বিধায়ক থাকাকালীন সরকারি নিরাপত্তারক্ষী নিইনি। সাংসদ থাকাকালীন নিই না। আমার ব্যাক্তিগত নিরপত্তারক্ষীও নিইনি। আরও হ্যান্ডবুকে পেজ নম্বর স্পষ্ট করে যা বলা আছে, আমি তা মেনেই গিয়েছি। আমার আইডি কার্ডটা নির্বাচন কমিশনই দিয়েছে। পাশপাশি জগন্নাথ সরকারের বিরুদ্ধে মহুয়া মৈত্র বলেন, উনি চারজন বন্দুকধারী নিরাপত্তারক্ষী নিয়ে ঘোরেন। যেটা আমি করি না। তাই আইনটা ওনার জন্য প্রয়োজন। এসব অশিক্ষিত বক্তব্য়ের জবাব দেওয়ার আমার কোনও দরকার নেই।

আরও পড়ুন, Rajib Banerjee- 'নেওয়াই উচিত হয়নি', রাজীবের তৃণমূল যোগে খুশি নন কল্যাণ, তোপ অর্জুনেরও

 বিধানসভা নির্বাচনে শান্তিপুর বিধানসভা আসন থেকে জয়ী হয়েছিলেন বিজপি প্রার্থী জগন্নাথ সরকার। প্রায় ৩০ হাজার বেশি ভোট পেয়ে জয়ী হন তিনি। কিন্তু ফল প্রকাশের পর তিনি পদত্যাগ করেন। সাংসদ পদ বেছে নিয়েই পদত্যাগ করেন তিনি। 

আরও দেখুন, বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios